বিতর্ক থামাতে রাজীবের প্রশংসায় পঞ্চমুখ ফিরহাদ হাকিম

বিতর্ক থামাতে রাজীবের প্রশংসায় পঞ্চমুখ ফিরহাদ হাকিম

হাওড়ায় সরকারি অনুষ্ঠানে একই মঞ্চে ফিরহাদ হাকিম ও রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়৷

এ দিন দলীয় বিতর্ক নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ ছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ও৷

  • Share this:

#হাওড়া: 'আমরা সিনিয়ররা যে সব আগামী প্রজন্মের দিকে তাকিয়ে থাকি, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁদের মধ্যে অন্যতম। রাজীব দক্ষতা সম্পন্ন মানুষ। তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ওকে দায়িত্ব দিয়েছেন।' বলছেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। আর হাততালিতে ঝড় উঠছে মঞ্চ জুড়ে। যাবতীয় বিতর্ক দূরে সরিয়ে মঙ্গলবার রাজীবকে পাশে বসিয়েই  এভাবেই প্রশংসায় পঞ্চমুখ হলেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। দলীয় সমীকরণে যিনি হাওড়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের পর্যবেক্ষকও বটে।

আমফান ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বহু গাছ। সুন্দরবনে ম্যানগ্রোভ সহ রাজ্য জুড়ে আট কোটি গাছের চারা লাগানোর লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করেছে রাজ্য বনদপ্তর । মঙ্গলবার সেই উদ্দেশ্যেই বনমহোৎসবের সূচনা হল হাওড়ার বালিতে। দলীয় বিতর্ক দূরেই রেখে রাজীবের সঙ্গে এক মঞ্চে এক ফ্রেমে ধরা দিলেন মন্ত্রী ফিরহাদ। কয়েকদিন আগেই যিনি প্রকাশ্যে দল নিয়ে ক্ষোভ জানানোর জন্য এই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়েরই কঠোর সমালোচনা করেছিলেন।

দিন কয়েক আগেই দলে শুদ্ধিকরণএর নামে  'চুনোপুঁটিদের ধরে রাঘব বোয়ালদের ছাড়া হচ্ছে' বলে নাম না করেই দলের হাওড়ার জেলা সভাপতি মন্ত্রী অরূপ রায়ের বিরুদ্ধে কামান দেগেছিলেন রাজীব । তা নিয়ে বিতর্কের জলও গড়ায় বহুদূর। এ দিন অবশ্য ফিরহাদ হাকিমকে এ নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন  'কোনও বিতর্কই কখনও ছিল না৷'

এ দিন দলীয় বিতর্ক নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ ছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ও৷ তবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে যে তিনি লড়াই চালিয়ে যাবেন, এমন ইঙ্গিতবাহী মন্তব্য শোনা গেল বনমন্ত্রীর মুখে। অনুষ্ঠানের শেষে রাজীব বলেন 'আমাদের নেত্রী দুর্নীতির বিরূদ্ধে লড়াই করছেন। আমিও যাবতীয় দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়তে চাই।' তবে এখানে কোন দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ডাক তিনি দিলেন, তা অবশ্য স্পষ্ট করেননি রাজীববাবু । তিনি বলেন, 'আমি আমার অবস্থানে একই জায়গায় আছি।'

কিছুদিন আগেই জেলার অরূপ ঘনিষ্ঠ নেতারা রাজীবের বিরুদ্ধে নাম না করে তাঁকে নিশানা করেছিলেন। এ নিয়ে রাজীব বলেন, 'কার কী গুরুত্ব আছে তা বাংলার মানুষ জানে, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে বলে দিতে হবে না৷ আমি যা বলেছি স্পষ্ট ভাষায় বলে দিয়েছি৷ আমি আমার বক্তব্য থেকে সরছি না, দলকে যা বলার বলে  দিয়েছি৷'

জেলার রাজনৈতিক মহল মনে করছে এটা আসলে নাম না করে সভাপতি অরূপ রায়কেই খোঁচা দিলেন রাজীব। এ দিনের অনুষ্ঠানে সরকারি আধিকারিকরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দুই তৃণমূল বিধায়ক বৈশাখী ডালমিয়া ও প্রবীর ঘোষল৷

Sourav Guha/Debashish Chakraborty

Published by:Debamoy Ghosh
First published: