corona virus btn
corona virus btn
Loading

বিদ্যুতের তারে ভেঙে পড়া গাছ কাটতে গিয়ে মৃত্যু হল দমকল কর্মীর

বিদ্যুতের তারে ভেঙে পড়া গাছ কাটতে গিয়ে মৃত্যু হল দমকল কর্মীর

বিদ্যুৎ কর্মীরা জানান সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে তার পর বিদ্যুৎ কর্মীদের ব্যবহার করা সিঁড়ির সাহায্যে ওপরে ওঠেন বালি দমকল বিভাগের কর্মী সুকান্ত সিংহ রায় ৷

  • Share this:

#বেলুড়: বিদ্যুতের তারে ভেঙে পড়া গাছ কাটতে গিয়ে মৃত্যু হল এক দমকল কর্মীর | মৃতের নাম সুকান্ত সিংহ রায়, বাড়ি হুগলির তারকেশ্বর | দমকল সূত্রে খবর  বেলুড় গাঙ্গুলি স্ট্রিটে CESC র ওভার হেডেড বৈদ্যুতিক তারের ওপর আমফানের কারণে একটি গাছ ভেঙে পড়েছিল ৷  তার জেরে বেশ কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ পরিষেবাও বন্ধ ছিল ৷ বুধবার সেই গাছ কাটার জন্যই এদিন বালি দমকল বিভাগের কর্মীরা CESC র কর্মীদের নিয়ে সেখানে যান ৷ বালি দমকল বিভাগের স্টেশন অধিকর্তার রাম কৃষ্ণ সিনহা জানান CESC কর্মীদের বিদ্যুতের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার আবেদন করেন ৷

বিদ্যুৎ কর্মীরা জানান সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে তার পর বিদ্যুৎ কর্মীদের ব্যবহার করা সিঁড়ির সাহায্যে ওপরে ওঠেন বালি দমকল বিভাগের কর্মী সুকান্ত সিংহ রায় ৷  হাতে ছিল গাছ কাটার জন্য একটি কুড়ুল, বিদ্যুতের পোস্টে উঠে গাছ কাটতে গেলেই পোস্টেই বিদ্যুৎপৃষ্ট হন সুকান্ত বাবু ৷ তার হাত থেকে কুড়ুলটি পরে যাই রাম কৃষ্ণ সিনহার বাবুর পায়ে | আহত হন তিনিও | এরপর সুকান্ত বাবু বিদ্যুপৃষ্ট হয়েছে বুঝতে পেরেই দ্রুত তাকে উদ্ধার করা হয়, তারপর তাকে প্রথমে নিয়ে যাওয়া হয় উত্তর হাওড়ার জয়সোয়াল হাসপাতালে সেখান থেকে হাওড়া হাসপাতালে নিয়ে এলে তাকে চিকিৎসকেরা মৃত বলে ঘোষণা করেন ৷ খবর পেয়ে হাওড়া হাসপাতালে আসেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ডি জি অগ্নিনির্বাপন বিভাগ শ্রী জগমোহন | তার নির্দেশে বিদ্যুৎ সংস্থা CESC র কর্তব্যরত তিন কর্মীর বিরুদ্ধে বেলুড় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়, দমকলের অভিযোগের বিরুদ্ধে বিদ্যুৎ সংস্থার তিন কর্মীকে গ্রেফতার করা হয় ৷ কর্তব্যে গাফিলতি ও অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা রুজু করা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে |

ঘটনার খবর পেয়ে রাজ্যের মুখমন্ত্রী মৃত দমকল কর্মীর পরিবারকে ১০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ ও পরিবারের একজনকে চাকরির আশ্বাস দেন | ময়নাতদন্তের পর মৃত দমকল কর্মীর দেহ নিয়ে যাওয়া হয় তার কর্মস্থল বালি দমকল বিভাগে, সেখানে তার নিথর দেহে ভারতীয় পতাকা বিছিয়ে ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানান রাজ্যের দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু, উপস্থিত ছিলেন মৃত্যু সুকান্ত বাবুর বাবা ও দাদা ৷ এরপর তার দেহ নিয়ে সহকর্মী ও তার পরিবার হুগলির বাড়ির উদ্দেশে রওনা হন, হুগলির তারকশ্বের সন্তোষ পুড়ে দেহ নিয়ে যেতেই কান্নায় ভেঙে পরে গোটা পরিবার ও গ্রাম |

গ্রামের খেলাধুলা প্রিয় সুকান্তর এমন পরিস্থিতি কেউ মেনে নিতে পারেনি | গ্রাম বাসীদের দাবি CESC র দায়িত্বজ্ঞেনহীনতার জন্যই একটি তরতাজা প্রাণ আজ চলে গেলো | অন্যদিকে CESC র এক আধিকারিকের দাবি কোথাও কোনো বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করে কোনো সরকারি দফতর কাজ করতে চাইলে আগে থেকে তাদের লিখিত জানাতে হয়, এই ক্ষেত্রে তাদের কাছে কোনো নির্দিষ্ট কিছু জানা ছিল না, এমনকি তিন CESC কর্মী কাদের কোথায় ওখানে গিয়েছিলেন তা  খতিয়ে দেখা হবে এবং তাদের গাফিলতির বিষয় তদন্ত করা হবে |

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: May 27, 2020, 11:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर