• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • হাওড়া স্টেশনের ফুডপ্লাজায় আগুন!

হাওড়া স্টেশনের ফুডপ্লাজায় আগুন!

হাওড়া স্টেশনে আগুন ৷ শুক্রবার সকালে ৬.১০ নাগাদ আগুন লাগে হাওড়া স্টেশনের ফুড প্লাজায় ৷

হাওড়া স্টেশনে আগুন ৷ শুক্রবার সকালে ৬.১০ নাগাদ আগুন লাগে হাওড়া স্টেশনের ফুড প্লাজায় ৷

হাওড়া স্টেশনে আগুন ৷ শুক্রবার সকালে ৬.১০ নাগাদ আগুন লাগে হাওড়া স্টেশনের ফুড প্লাজায় ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #হাওড়া:হাওড়া স্টেশনের ফুড প্লাজায় আগুন। কর্মীদের অসতর্কতায় তেল ওভেনে ছেটায় আগুন ধরে যায়। সাউথ সিটির মতো সেন্ট্রাল এসি থাকায় দ্রুত ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়ে। আতঙ্ক ছড়ায় যাত্রীদের মধ্যে। ঘটনায় প্রশ্নের মুখে ফুডপ্লাজার অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা। সকাল ৬.১০ নাগাদ হাওড়া স্টেশনের ফুডপ্লাজার রান্না ঘরে আগুন। প্রথমে কর্মীরাই আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। কিন্তু নিয়্ন্ত্রণে না আসায় খবর দেওয়া হয় দমকলকে। ঘটনাস্থলে আসে দমকলের ৫টি ইঞ্জিন। ধোঁয়ার জেরে আগুন নেভাতে যথেষ্ট বেগ পেতে হয় দমকলকে। কালো ধোঁয়ায় ঢেকে যায় গোটা হাওড়া স্টেশন। ধোঁয়ায় অসুস্থ হয়ে পড়েন ২ দমকলকর্মী। প্রায় ২ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। আতঙ্ক ছড়ায় সাধারণ যাত্রীদের মধ্যে। ব্যস্ত সময়ে আগুন লাগলে আরও বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারত। ফলে নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন যাত্রীরা।    কর্মীদের দাবি, রান্নাঘর সাফাইয়ের সময় তেল ছিটকে ওভেনে লেগে আগুন লেগে যায়। সেন্ট্রাল এসি থাকায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে ফুড প্লাজার দোতলাতেও। ঠিক যেভাবে কালো ধোঁয়ায় ঢেকে গিয়েছিল সাউথ সিটির ফুডকোর্ট।   অগ্নিকাণ্ডের জেরে প্রশ্নের মুখে ফুড প্লাজার অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা। প্রথমে অগ্নি নির্বাপক সিলিন্ডার দিয়ে কর্মীরাই আগুন নেভাতে যান। কিন্তু মাত্র ২-৩টি সিলিন্ডার দিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা যায়নি। সিলিন্ডারগুলির মেয়াদ কী শেষ হয়ে গিয়েছিল?  কর্মীরা কী অগ্নি নির্বাপনে যথাযথ প্রশিক্ষিত ছিলেন?   আপাতত বন্ধ থাকবে ফুড প্লাজা। রেলের সিনিয়র ডিভিশনাল ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়র প্রাথমিক তদন্ত রিপোর্ট পাঠাবেন ডিআরএমকে। সেই রিপোর্টের ওপরই নির্ভর করবে ফুড প্লাজার ভবিষ্যৎ।

    First published: