corona virus btn
corona virus btn
Loading

প্রেমের এমন পরিণতি! ধারাল ছুরি পেটে ঢুকিয়ে ছেলেকে খুন করল বাবা!

প্রেমের এমন পরিণতি! ধারাল ছুরি পেটে ঢুকিয়ে ছেলেকে খুন করল বাবা!
Representative Image

ভাব ভালোবাসার জন্য সময় নষ্ট না করে আগে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার কথা বলেছিলেন। কিন্তু তাতে কর্ণপাত করেনি ছেলে। লুকিয়ে চুরিয়ে প্রেম চলছিলই।

  • Share this:

#পূর্ব বর্ধমান: প্রেম ভুলে কাজে মন দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন বাবা। ভাব ভালোবাসার জন্য সময় নষ্ট না করে আগে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার কথা বলেছিলেন। কিন্তু তাতে কর্ণপাত করেনি ছেলে। লুকিয়ে চুরিয়ে প্রেম চলছিলই। তা জানতে পারায় বাবা শাসনও করেছিলেন। কিন্তু তাতেও সেই ছেলেকে সম্পর্ক থেকে ফিরিয়ে আনা যায়নি। শুক্রবার রাতেও ফোনে ব্যস্ত ছিলেন ছেলে। প্রেমালাপ চলছে বুঝতে পেরেই ধারালো অস্ত্র দিয়ে ছেলেকে খুন করলেন বাবা। পূর্ব বর্ধমানের পূর্বস্থলীর এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে জেলা জুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

পূর্বস্থলী থানার হামিদপুরে মৃত ওই যুবকের নাম আলিমুদ্দিন শেখ। আলিমুদ্দিন কেরলে নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করতেন। করোনা পরিস্থিতির কারণে দেড় মাস আগে তিনি বাড়ি ফিরেছিলেন। ফেরার পর স্থানীয় একটি  মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে আলিমুদ্দিনের।সেটি মেনে নিতে পারেননি তার বাবা আব্দুল সালেক সেখ। ছেলেকে এই সম্পর্ক থেকে ফিরে আসার কথা বলেছিলেন তিনি। ছেলে তা না শুনে সম্পর্ক বজায় রেখেছিলেন।

আলিমুদ্দিনের বাড়ির কাছেই মেয়েটির দিদির বাড়ি। সেই দিদির বাড়ি এসে গতকাল, শনিবার, আলিমুদ্দিনের সঙ্গে ওই মহিলা বেশ কিছুক্ষন গল্প করেন। তা দেখে ফেলেন আলিমুদ্দিনের বাবা আবদুল সালেক। তা নিয়ে ছেলেকে বকাঝকাও করেন তিনি। ফের রাতে ছেলে ওই মহিলার সঙ্গে ফোনে কথা  বলছেন দেখে রাগে ফেটে পড়েন তিনি। এরপর রাগের মাথায় ধারালো ছুরি নিয়ে ছেলের পেটে তা ঢুকিয়ে দেন। বাধা দিতে এসে জখম হন আলিমুদ্দিনের মাও। প্রচন্ড রক্তক্ষরণে ঘটনাস্থলেই নিস্তেজ হয়ে পড়েন আলিমুদ্দিন। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

এলাকার বাসিন্দারা বলেন, রাতে হঠাৎ চিৎকারে সবাই আলিমুদ্দিনের বাড়িতে যায়। দেখা যায় রক্তে ভেসে যাচ্ছেন ওই যুবক। অচৈতন্য হয়ে পড়ে রয়েছেন। সবাই মিলে গাড়ির ব্যবস্থা করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ঘটনার পর থেকেই মৃত যুবকের বাবা পলাতক। খবর পেয়ে পূর্বস্থলী থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তে পাঠিয়েছে তারা। রক্ত মাখা ছুরিটি পুলিশ বাজেয়াপ্ত করেছে। অভিযুক্ত আবদুল সালেক সেখের খোঁজ চলছে। শুধুমাত্র বান্ধবীর সঙ্গে কথা বলার অভিযোগে একজন বাবা তার ছেলেকে এমন নৃশংস ভাবে যে খুন করতে পারেন তা ভাবতে পারছেন না অনেকেই। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনায় স্তম্ভিত এলাকার বাসিন্দারা।

Published by: Pooja Basu
First published: August 9, 2020, 6:11 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर