'দোষ' ছাগলের! দুই পরিবারের মধ্যে মারামারিতে প্রাণ গেল দু'জনের

'দোষ' ছাগলের! দুই পরিবারের মধ্যে মারামারিতে প্রাণ গেল দু'জনের

সম্পর্কে তাঁরা পরস্পরের কাকিমা ও ভাশুরপো।

সম্পর্কে তাঁরা পরস্পরের কাকিমা ও ভাশুরপো।

  • Share this:
 #মুর্শিদাবাদ: জমির মধ্যে ছাগল ঢুকেছে। ছাগল খেয়েছে জমির ফসল। তাই নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে সংঘর্ষ। আর তার জেরেই প্রাণ হারালেন দুজন। মঙ্গলবার বিকেলে ঘটনাটি ঘটেছে মুর্শিদাবাদের রানিনগরের বাংলাদেশ সীমান্তগ্রাম চর বাঁশগাড়ায়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতদের নাম মলিনা বিবি (৩৫) ও সুজন শেখ (২২)। সম্পর্কে তাঁরা পরস্পরের কাকিমা ও ভাশুরপো।

জেলা পুলিশ সুপার কে সাবেরির রাজকুমার জানিয়েছেন, পারিবারিক বিবাদের জেরেই ধুন্ধুমার বেঁধে যায় দুপক্ষের। দুজনের মৃত্যু হয়েছে। অভিযুক্তরা ঘটনার পর পলাতক। মৃতের আত্মীয় আজিম শেখ বলেন,  “এই ঘটনার সঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই। দু’পক্ষই তৃণমূলের সমর্থক। পুরনো বিবাদ ছিল। মঙ্গলবার বিকেলে ছাগল জমির মধ্যে ছেড়ে দেয় এক পক্ষ। পরিবারের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। তারপরে বজলুর লোকজন নিয়ে এসে আক্রমণ করে ও বোমাবাজি করে। ঘটনাস্থলেই একজন মারা যায়। আরেকজন হাসপাতালে মারা যায়।

ঘটনার সূত্রপাত কয়েকদিন আগে। মৃত সুজনের বাবা পিয়ারুল শেখ  কয়েকজন আত্মীয় নিয়ে জেসিবি দিয়ে জমির মাটি তুলে অন্যত্র নিয়ে যাচ্ছিল। যাওয়ার সময় প্রতিবেশী জাহাঙ্গিরদের জায়গা ব্যবহার হচ্ছিল। যা নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে বচসা থেকে সংঘর্ষে উভয় পক্ষের চার জন জখম হয়েছিল। ঘটনা নিয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের হয়। এই অবস্থায় মঙ্গলবার বিকেলের দিকে ফের ওই জাহাঙ্গির বজলুররা তাঁদের  ছাগল জোর করে সুজনদের জমিতে ঢুকিয়ে দিলে ফের বচসা বাঁধে।  ওই সময় জাহাঙ্গিরের পক্ষের লোক বজলুর রহমানরা বোমাবাজি ও গুলি  ছুড়তে শুরু করে বলে অভিযোগ ।  বোমার আঘাতে সুজনের ডানহাত উড়ে যায়।  ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়ে। গলায় গুলি লাগে মৃত মলিনা বিবি’র। তাঁকে আহত অবস্থায় রানিনগরের গোধনপাড়া ব্লক হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকর মৃত ঘোষণা করেন। জানা গিয়েছে, ওই ঘটনায় আরও একজন আহত হয়েছে। জেলার পুলিশ সুপার অবশ্য গুলি চলার কথা অস্বীকার করেছেন।

Published by:Suman Majumder
First published:

লেটেস্ট খবর