পড়ে থাকা অতিরিক্ত ওষুধ সকলের মধ্যে বিলিয়ে দিতে মেডিসিন ড্রপ বক্স চালু করলেন ফেসবুক গ্রুপের সদস্যরা

পড়ে থাকা অতিরিক্ত ওষুধ সকলের মধ্যে বিলিয়ে দিতে মেডিসিন ড্রপ বক্স চালু করলেন ফেসবুক গ্রুপের সদস্যরা

এই ওষুধ দেওয়া হবে তাঁদের গ্রুপের সদস্য এক চিকিৎসকের মধ্যমে। তাই কেউ ভুল ওষুধ পাবেন না।

  • Share this:

RAJARSHI ROY

#মধ্যমগ্রাম: বাড়িতে বাড়তি ওষুধ। এখনও এক্সপায়ার হয়নি। কি করবেন? দোকানদার আবার এই ধরনের ওষুধ ফিরতেও নিতে চায় না। এই কথা গুলোই ভাবায় অনেককে। নগদ টাকায় কেনা নানান দামের ওষুধগুলি শুধু শুধুই নস্ট হয় বাড়িতে পড়ে থেকে। মূলত মধ্যমগ্রামের বাসিন্দাদের তৈরী ফেসবুক গ্রুপে এই ভাবনা নিয়ে আলোচনা চলছিল গত কয়েক মাস ধরে।  তারপর নিজেদের মধ্যে মত বিনিময় করে ঠিক হয় বাড়ির বাড়তি ওষুধ গুলো এক জায়গায় জড়ো করার। কিন্তুু তারপর কী হবে? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে এই সোশ্যাল মিডিয়ায় গ্রুপের সদস্যরা ঠিক করেন তাঁরা প্রস্তাব দেবে মধ্যমগ্রাম পুরসভাকে।

গত মাসের পুরসভার বোর্ড মিটিংয়ের  আগেই পুরবাসীদের এই সোশ্যাল মিডিয়ার তরফ থেকে প্রস্তাব দেওয়া পুরসভাকে তাঁদের সহযোগী হওয়ার। অর্থাৎ এই সোশ্যাল মিডিয়ায় গ্রুপ পুরভবন-সহ শহরের তিনটি জায়গায় মেডিসিন কালেকশন বক্স বসাবেন তাঁরা। পুরসভাকে তাঁদের সহযোগী হিসাবে থেকে অনুমতি দিতে হবে।

মধ্যমগ্রাম পুরসভার পুরপ্রধান ও বিধায়ক রথীন ঘোষ এই দিন জানান, গত মাসের বোর্ড মিটিংয়ে সোশ্যাল মিডিয়া গ্রুপের প্রস্তাব পাশ হয়েছে। আজ বুধবার থেকে পুরভবনের প্রবেশ দ্বারেই মেডিসিন ড্রপ বক্সকে সর্বসাধারণের জন্য। পুরপ্রধানের দাবি, পুর পরিসেবায় সমাজের সকল ধরনের মানুষকে যুক্ত করার প্রয়াস এটি।ভোটের আগে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারে জোর দিছে তাঁদের দল। আর পুরসভার প্রবেশের মুখে এমন একটি প্রয়াস দেখে নগরবাসী অনুপ্রাণিত হবেন। তবে ড্রপ বক্সে মেয়াদ উত্তীর্ণ কোনও ওষুধ না দেওয়ার জন্য আবেদন রাখেন পুরপ্রধান রথীন ঘোষ।

সোশ্যাল মিডিয়া গ্রুপকে জানিয়ে দেন, এই বক্সগুলি থেকে পাওয়া ওষুধ গুলি মানুষকে দেওয়ার আগে ভাল করে ঝাড়াই বাছাই যেন করা হয়। এই গ্রুপের অ্যাডমিন সুরজিৎ চৌধুরী এ দিন বলেন, বাড়তি ওষুধ সংগ্রহের দায়িত্ব নিয়েছি। যাঁদের ওষুধ কেনার ক্ষমতা নেই, তাঁদের কাছে আমরা পৌঁছে দেব সংগৃহীত ওষুধ। তাঁর দাবি, এই ওষুধ দেওয়া হবে তাঁদের গ্রুপের সদস্য এক চিকিৎসকের মধ্যমে। তাই কেউ ভুল ওষুধ পাবেন না। ‘দায় নিয়েছি, দায়িত্ব তো নেবই’, সংযোজন ‘আমার তোমার’ ফেসবুক গ্রুপের অ্যাডমিন সুরজিৎ চৌধুরীর।

First published: March 11, 2020, 8:20 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर