নবদম্পতির মরণোত্তর চক্ষুদান বীরভূমে

নবদম্পতির মরণোত্তর চক্ষুদান বীরভূমে

নবদম্পতির এই ইচ্ছেটা ছিল অনেকদিন আগে থেকেই যে সমাজের জন্য কিছু করে যাওয়া, যা মানুষের কাজে লাগবে।

  • Share this:

#বীরভূম: নতুন জীবনে পা নবদম্পতির ৷ সমাজের জন্য অঙ্গীকার নিদর্শন তৈরি করল। বীরভূমের দুবরাজপুরের লোবা এলাকার কোটা গ্রামের নবদম্পতি বৌভাতের দিন তাদের চোখ দুটি মরণোত্তর দান করলেন দুর্গাপুর ব্লাইন্ড রিলিফ সোসাইটির কাছে। তাদের এই ইচ্ছেটা ছিল অনেকদিন আগে থেকেই যে সমাজের জন্য কিছু করে যাওয়া ,  যা মানুষের কাজে লাগবে।

বিয়ের দিনই পার্থসারথি রায় নিজের সদ্যবিবাহিত বউ অনন্যাকে তার মনের ইচ্ছার কথা জানাতেই এক কথায় রাজি হয়ে যায় অনন্যা। সেইমতো দুর্গাপুর ব্লাইন্ড রেলিফ সোসাইটি সঙ্গে কথা বলে নেওয়া আর তারপরই বৌভাতের দিন হাজির হন সোসাইটির লোকজন। বৌভাতে উপস্থিত সবার সামনে ওই নব দম্পতি তাদের চোখ মরণোত্তর দান করলেন ওই সোসাইটিকে।

পার্থসারথি রায় জানালেন, ইচ্ছে ছিল অনেকদিন আগে থেকেই তবে তার ইচ্ছাতে এক কথায় রাজি হয়েছে অনন্যা তাতে তিনি কৃতজ্ঞ অনন্যার কাছে। অন্যদিকে অনন্যা জানিয়েছে শরীরের এই চোখ দুটো তিনি রেখে গেলেন সমাজের জন্য যাতে তার মারা যাওয়ার পর এই চোখ দুটো কাজে লাগে, অন্য কেউ এই চোখ দিয়েই দুচোখ ভরে পৃথিবীর আলো দেখতে পায়।

দুর্গাপুর ব্লাইন্ড রিলিফ সোসাইটির যারা এসেছিলেন মরণোত্তর চক্ষুদানের কাগজপত্রে সই করাতে তারাও অবাক হলেন নবদম্পতির এই পদক্ষেপ দেখে ৷ নবদম্পতিকে তারা তো আশীর্বাদ করলেনই,  আশীর্বাদ করলেন বৌভাতে নিমন্ত্রিত অতিথিরাও। দু’হাত ভরে আশীর্বাদ করলেন তারা। ওই নবদম্পতির আবেদন প্রত্যেক মানুষের উচিত মরণোত্তর চোখ দান করে যাওয়া তাতে অনেক দৃষ্টিহীন পৃথিবীর আলো দেখতে পাবে।

Supratim Das

First published: February 3, 2020, 12:08 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर