Home /News /south-bengal /
জাল ওষুধের রমরমা, গ্রেফতার ১

জাল ওষুধের রমরমা, গ্রেফতার ১

মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধের পর এবার জাল ওষুধ। পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরির মৌহাটিতে বেআইনি ওষুধের দোকানের খোঁজ মিলল বৃহস্পতিবার।

  • Last Updated :
  • Share this:

    #মেদিনীপুর: মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধের পর এবার জাল ওষুধ। পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরির মৌহাটিতে বেআইনি ওষুধের দোকানের খোঁজ মিলল বৃহস্পতিবার।  নামী কোম্পানির ওষুধ জাল করে নিজেই চিকিৎসা করতেন ওই ব্যবসায়ী। ড্রাগ কন্ট্রোল ও এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করে এক ব্যক্তিকে।বাইরে থেকে দোকান দেখে কারোর বোঝার সাধ্যি নেই, এখানেই রমরমিয়ে চলছিল নকল ওষুধের ব্যবসা। বছর খানেক ধরে এই দোকান চালান বুদ্ধদেব দাস নামে এক ব্যক্তি। শুধু দোকান চালানোই নয়, চিকিৎসকের ভূমিকাও পালন করেন তিনি।বৃহস্পতিবার গোপন সূত্রে খবর পেয়ে হান দেয় এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ, সঙ্গে ছিল ড্রাগ কন্ট্রোল দফতরের আধিকারিকরাও। দোকান থেকে পাওয়া যায়নি কোনও ট্রেড লাইসেন্স বা ওষুধের বৈধ কাগজপত্র। অভিযান চালানোর পর মেলে প্রচুর নকল ওষুধ। নামী কোম্পানির ওষুধ জাল করা হত এখানে। দোকান থেকে উদ্ধার হয়েছে প্রচুর ট্যাবলেট, কাশির সিরাপ, ইঞ্জেকশন। তবে এই ওষুধ কোথা থেকে কেনা হত বা কোথায় বানানো হত, তার হদিশ এখনও পাওয়া যায়নি। খোঁজ চালাচ্ছে ড্রাগ কন্ট্রোল ও এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ। প্রথমে বুদ্ধদেব দাসকে আটক করা হলেও পরে গ্রেফতার করা হয়। শুক্রবার তাকে তোলা হবে কাঁথি আদালতে।এর আগেও মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ মিলেছিল কলকাতার বাজার থেকে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, নকল ওষুধ বা মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মারাত্মক। দীর্ঘদিন খাওয়ার ফলে ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে কিডনি বা ফুসফুস। ড্রাগ কন্ট্রোল দফতরের নজরদারি এড়িয়ে কীভাবে এতোদিন ব্যবসা চালালেন, তা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন। তবে শুধুই নকল ওষুধ বিক্রি নাকি এর পিছনে আরও কোনও বড় চক্র কাজ করছে তা খতিয়ে দেখছে এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ ও পুলিশ।

    First published:

    Tags: Bengali News, Expired medicines, Fake Drugs Racket, Fake Medicines