পাটের জমিতে ছাগল যাওয়াকে কেন্দ্র করে বচসা, খুন প্রাক্তন সেনা জওয়ান

হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসকেরা কালামকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন মৃতের পরিবার ।

হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসকেরা কালামকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন মৃতের পরিবার ।

  • Share this:

    Pranab Kumar Banerjee

    #হরিহরপাড়া: পাটের জমিতে ছাগল যাওয়াকে কেন্দ্র করে বচসা, খুন প্রাক্তন সেনা জওয়ান। সোমবার এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা দেখা যায় হরিহরপাড়া থানার স্বরূপপুর দাওতের মোড় এলাকায়। মৃতের নাম আবুল কালাম শাহ। পাটের জমিতে ছাগল ঢুকে গাছ নষ্ট করে দেওয়ায় প্রতিবেশীদের সঙ্গে বচসা বাঁধলে ইট দিয়ে মারধরের অভিযোগ ওঠে ছাগল মালিক কালামের বিরুদ্ধে। তড়িঘড়ি হরিহরপাড়া ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় হরিহরপাড়া থানার পুলিশ। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠাযনো হয়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

    পাটের জমিতে ছাগল ঢুকে  গাছ নষ্ট করে দেওয়ার প্রতিবাদ করায় বচসা, আর তার জেরেই খুন প্রাক্তন সেনা জওয়ান আবুল কালাম শাহ,বয়স ৫০। সোমবার ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে হরিহরপাড়া থানার স্বরূপপুর দাওতের মোড় এলাকায়। পরিবার সূত্রে জানা যায়, আবুল কালাম শাহের পাটের জমিতে ছাগল ঢুকে গাছ নষ্ট করছিল। তিনি ছাগলটি ধরে নিয়ে ছাগল মালিকের কাছে নিয়ে যাচ্ছিলেন। সেই সময় প্রতিবেশীদের সঙ্গে বচসা বাঁধলে, ইট দিয়ে মারধরের অভিযোগ ওঠে ছাগল মালিক-সহ স্থানীয় আরও ৫জনের বিরুদ্ধে। লাঠিসোঁটা দিয়েও বেধরক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। ঘটনাস্থলে লুটিয়ে পড়েন তিনি। স্থানীয়রা তড়িঘড়ি হরিহরপাড়া ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে গেলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় হরিহরপাড়া থানার পুলিশ।

    মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মূর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে পাঠানো হয়। ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির দাবি জানায় মৃত প্রাক্তন জওয়ানের পরিবারের লোকেরা। ঘটনায় মৃতের পরিবারজুড়ে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। তবে শুধু কী জমিতে ছাগল যাওয়াকে কেন্দ্র করেই এই ঘটনা, নাকি পুরোনো বিবাদের জেরে এই খুন? গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে হরিহরপাড়া থানার পুলিশ। মৃতের আত্মীয় বাবর শেখ বলেন, পাটের জমিতে ছাগল যাওয়াকে কেন্দ্র করে এ দিন বচসা শুরু হয়। তিনি ঝামেলা মিটিয়ে দিলেও ছাগল মালিকেরা আবুল কালাম শাহর উপর ইট বৃষ্টি শুরু করে ও লাঠিসোটা নিয়ে মারধর করে অন্যান্যরা। হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসকেরা কালামকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তিনি।

    Published by:Simli Raha
    First published: