• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • আকাশছোঁয়া দাম! পুজোর মুখে কালোবাজারি! পূর্ব বর্ধমানে বাজার অভিযানে নামল প্রশাসন

আকাশছোঁয়া দাম! পুজোর মুখে কালোবাজারি! পূর্ব বর্ধমানে বাজার অভিযানে নামল প্রশাসন

সরষের তেলের কেজিপ্রতি দাম ১৩০ টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে। ব্যাপকভাবে দাম বেড়েছে মুগ্ধ, মুসুর সহ বিভিন্ন ডালের। দাম বাড়ছে ডিমেরও।

সরষের তেলের কেজিপ্রতি দাম ১৩০ টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে। ব্যাপকভাবে দাম বেড়েছে মুগ্ধ, মুসুর সহ বিভিন্ন ডালের। দাম বাড়ছে ডিমেরও।

সরষের তেলের কেজিপ্রতি দাম ১৩০ টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে। ব্যাপকভাবে দাম বেড়েছে মুগ্ধ, মুসুর সহ বিভিন্ন ডালের। দাম বাড়ছে ডিমেরও।

  • Share this:

Saradindu Ghosh

#বর্ধমান: পুজোর আগে বাজারে কালোবাজারি রুখতে অভিযানে নামল পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন। জেলা এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ, কৃষি বিপনন দফতর, পূর্ব বর্ধমান জেলা নিয়ন্ত্রিত বাজার সমিতির আধিকারিকরা পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে বিভিন্ন বাজার ও হিমঘরে অভিযানে নেমেছেন। বেআইনিভাবে খাদ্যদ্রব্য মজুদ করে বাজারে কৃত্রিম অভাব সৃষ্টির মাধ্যমে জিনিসপত্রের দাম বাড়ানো রুখতেই এই অভিযানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে। বৃহস্পতিবার কালনায় এব্যাপারে অভিযান হয়েছে। কাটোয়া, বর্ধমান, মেমারি,গুসকরাতেও আপাতত ধারাবাহিকভাবে এই অভিযান চলবে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে।

রাজ্য সরকার আলুর দাম কমানোর কথা বললেও পূর্ব বর্ধমান জেলার অনেক বাজারেই ৩২ টাকা কেজি দরে আলু বিক্রি হচ্ছে। সবজির দাম আকাশছোঁয়া। কেজি প্রতি ৪০ টাকার ওপর দরে বিক্রি হচ্ছে বিভিন্ন সবজি। অথচ মাঠে কৃষকরা সেই তুলনায় দাম পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ উঠছে। আলু-পটল সহ বিভিন্ন সবজির দাম ফড়েদের হাত ঘুরে পাইকারি ও খুচরা বাজারে অনেক বেড়ে যাচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠছে। একইভাবে লাফিয়ে লাফিয়ে দাম বাড়ছে বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্যের। সরষের তেলের কেজিপ্রতি দাম ১৩০ টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে। ব্যাপকভাবে দাম বেড়েছে মুগ্ধ, মুসুর সহ বিভিন্ন ডালের। দাম বাড়ছে ডিমেরও।

অভিযানে অংশ নেওয়া আধিকারিকরা বলেন, অনেকক্ষেত্রে বাজারে কৃত্রিমভাবে অভাব তৈরি করার অভিযোগ আসছে। পুজোর পর দাম বাড়বে এই আশায় হিমঘরে আলু আটকে রাখা হচ্ছে। সেজন্য হিমঘরগুলোতেও ধারাবাহিকভাবে অভিযান চলছে। প্রতিনিয়ত হিমঘরগুলির মজুত আলুর তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে বিভিন্ন পাইকারি আড়তেও খাদ্যদ্রব্য কতটা মজুদ রয়েছে তা সরেজমিনে পরিদর্শন করা হচ্ছে। কৃত্রিম অভাব সৃষ্টি করে জিনিসপত্রের দাম বাড়ানো হলে বা বেআইনি মজুত হলে আইন মোতাবেক কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।আধিকারিকরা জানান, পুজোর আগে মুদিখানা দোকানের বিভিন্ন খাদ্যশস্যের  চাহিদা বাড়ে।  সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে  যাতে দাম বাড়ানো না হয় সে ব্যাপারেও নজরদাারি বাড়ানোো হচ্ছে।

Published by:Simli Raha
First published: