• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • Elephant in Aushgram| পাকা ধানে মই দিচ্ছে হাতি, মাথায় হাত আউশগ্রামের

Elephant in Aushgram| পাকা ধানে মই দিচ্ছে হাতি, মাথায় হাত আউশগ্রামের

আউশগ্রামে হাতির পাল।

আউশগ্রামে হাতির পাল।

Elephant in Aushgram| রাতের অন্ধকারে মশাল জ্বেলে হুলা পার্টির সদস্যরা হাতির দলটিকে দামোদর পার করিয়ে বাঁকুড়া জেলায় ফেরত পাঠানোর চেষ্টা চালাবে।

  • Share this:

#আউশগ্রাম: হাতির হাত থেকে ফসল বাঁচাতে মশাল নিয়ে ক্ষেতপাহাড়া দিচ্ছেন আউশগ্রামের চাষীরা। অবশ্য সারাদিনের সব চেষ্টাই সার, আউশগ্রামেই রয়েছে হাতির পাল। শুক্র-শনি দুদিনের চেষ্টাতেও সরানো গেল না হাতির দলটিকে। এখন হাতির দলটি যাদবগঞ্জ কুমারগঞ্জের মাঝের জঙ্গলে অবস্থান করছে। রাতের অন্ধকারে মশাল জ্বেলে হুলা পার্টির সদস্যরা হাতির দলটিকে দামোদর পার করিয়ে বাঁকুড়া জেলায় ফেরত পাঠানোর চেষ্টা চালাবে। সারাদিন মাইলের পর মাইল হাঁটাহাঁটির পর বিকালের দিকে জঙ্গলে বসে পরে হাতির দলটি।

বৃহস্পতিবার রাতেই শিবদা নওদার মাঝে ছিল হাতিগুলি। এরপর তারা বিল্লগ্রাম ও নওদার মাঝে আপালদিঘি নামে একটি জলাশয়ের কাছে অবস্থান করছিল। সেখান থেকে তাদের রাতেই দামোদর পার করার উদ্যোগ নেয় বন দপ্তর। অভিযোগ, সেই সময় স্থানীয় বাসিন্দাদের বাধায় সেই কাজে সাফল্য আসেনি। ফসল নষ্ট হয়ে যাবে এই আশঙ্কায় এলাকার বাসিন্দারা হট্টগোল শুরু করে দেয়। তার ফলে হাতির দলটি বিপরীতমুখে হাঁটা শুরু করে দেয়।

শুক্রবার সকালে শিবদা এলাকায় ছিল হাতির দলটি। এরপর বেলা বাড়লে গুসকরা শহর লাগোয়া ইটাচাঁদা এলাকায় পৌঁছে যায় হাতির দল। গুসকরা শহরে হাতির দল ঢুকে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা তৈরি হয়। শহর এলাকায় ঢুকে পড়লে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেকটাই বেড়ে যাবে বলে প্রমাদ গোনে বন দপ্তর।

আরও পড়ুন-বাংলার সাত জেলায় ভারী বৃষ্টি! আবহাওয়ার হঠাৎ পরিবর্তনে দুর্ভোগের পূর্বাভাস

অবশেষে গুসকরা শহর এড়িয়ে শান্তিপুরের পেছন দিয়ে রেল লাইন টপকে যায় হাতির দলটি। এরপর ধারাপাড়ার পাশ দিয়ে গোন্না ও দারিয়াপুরের মাঝে রাজ্য সড়ক পার হয় পঞ্চাশটি হাতির এই দল। এরপর তারা যাদবগঞ্জের দিকে রওনা দেয়। হাতির দলের গতিবিধি ড্রোন ক্যামেরার সাহায্যে নজর রাখে বনদপ্তর আধিকারিকরা।

আরও পড়ুন-দূষণের জন্য দায়ী কৃষকরা! কেন্দ্রের 'অজুহাতে' চরম ক্ষুব্ধ সুপ্রিম কোর্ট

শুক্রবার বিকেল নাগাদ যাদবগঞ্জ ও কুমারগঞ্জের মাঝের ছোট জঙ্গলে প্রবেশ করে হাতির দল। সেখানে তারা বসে পড়ে। রাতে তাদের সেখান থেকে দামোদরের দিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালানো হবে বলে জানিয়েছেন বনদপ্তর। বন দফতরের রাজ্যের পদস্হ কর্তা সহ বাঁকুড়া বর্ধমান বীরভূম জেলার আধিকারিকরা এখন আউশগ্রামে রয়েছেন। হাতিদের গতিবিধির ওপর নজর রেখে চলেছেন তারা  হাতি গুলিকে নির্বিঘ্নে দামোদর পার করিয়ে পাত্রসায়ের জঙ্গলে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়াই এখন বনদপ্তর এর আধিকারিকদের একমাত্র লক্ষ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে।

Published by:Arka Deb
First published: