হোম /খবর /দক্ষিণবঙ্গ /
নিত্য হাতির হানায় ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি, দিশেহারা বৃন্দাবনপুর-সাগরাকাটার বাসিন্দারা

নিত্য হাতির হানায় ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি, দিশেহারা বৃন্দাবনপুর-সাগরাকাটার বাসিন্দারা

গ্রামের পাশের জঙ্গলে ঘাঁটি গেড়েছে দুটি হাতি। দিনের বেলায় জঙ্গলে থাকলেও সন্ধ্যে নামতেই হাতি দুটি খাবারের খোঁজে প্রায় প্রতিদিন নিয়ম করে হানা দিচ্ছে পার্শ্ববর্তী গ্রামগুলিতে।

  • Last Updated :
  • Share this:

#বাঁকুড়া: গ্রামের পাশের জঙ্গলে ঘাঁটি গেড়েছে দুটি হাতি।  দিনের বেলায় জঙ্গলে থাকলেও সন্ধ্যে নামতেই হাতি দুটি খাবারের খোঁজে প্রায় প্রতিদিন নিয়ম করে হানা দিচ্ছে পার্শ্ববর্তী গ্রামগুলিতে।  বাড়ছে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান।  উদাসীনতার অভিযোগ বনদফতরের বিরুদ্ধে। ঘটনা বাঁকুড়ার বেলিয়াতোড় রেঞ্জের বৃন্দাবনপুর ও সাগরাকাটা গ্রামের।

বাঁকুড়ার বেলিয়াতোড় রেঞ্জের বৃন্দাবনপুর ও সাগরাকাটা গ্রামে হাতির হানা নতুন ঘটনা নয়।  গত কয়েক বছর ধরেই লাগাতার ভাবে হাতির হানার শিকার এই দুই গ্রামের মানুষ।  চলতি সপ্তাহে সেই হাতির উৎপাত সীমা ছাড়িয়েছে। পরপর হাতির হানার ঘটনা ঘটছে ওই দুটি গ্রামে।  দিন দুই আগে সাগরাকাটা গ্রামে হানা দিয়ে একটি দোকান ঘর ভেঙে দেয় দুটি হাতি।  ফের গতকাল রাতে দুটি হাতি হানা দেয় বৃন্দাবনপুর গ্রামে।

বন দফতরের বিট অফিস লাগোয়া একের পর এক তিনটি দোকানের দরজা ভেঙে দেয় হাতি দুটি।  দোকানে থাকা জিনিসপত্র খেয়ে ও নষ্ট করে চম্পট দেয়।  যাওয়ার পথে গ্রামের একটি আইসিডিএস কেন্দ্র ও লাগোয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হানা দেয় হাতি দুটি।  দরজা ভেঙে মিড ডে মিলের মজুত থাকা চাল খেয়ে ফেলে তারা। বন দফতরের উদাসীনতার কারনেই দিনের পর দিন এলাকায় ক্ষয়ক্ষতি হয়ে চলেছে এই দাবি তুলে সোমবার সকালে বন দফতরের বৃন্দাবনপুর বিট অফিসারকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান এলাকার মানুষ।

Mritunjoy Das

Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: Bankura, Elephant