corona virus btn
corona virus btn
Loading

ভিন রাজ্যের শ্রমিকদের বাড়ি পৌঁছে দিতে ট্রেন চাইল পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন

ভিন রাজ্যের শ্রমিকদের বাড়ি পৌঁছে দিতে ট্রেন চাইল পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন

শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেনে আসা হাজার হাজার যাত্রীদের সুষ্ঠভাবে গন্তব্যে পৌঁছে দিতে ২টি স্পেশ্যাল ট্রেন চাইল পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন

  • Share this:

#পূর্ব বর্ধমান: শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেনে আসা হাজার হাজার যাত্রীদের সুষ্ঠভাবে গন্তব্যে পৌঁছে দিতে ২টি স্পেশ্যাল ট্রেন চাইল পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন। বর্ধমান-হাওড়া ও  বর্ধমান-রামপুরহাট শাখার জন্য ২টি ট্রেন চেয়ে রাজ্য পরিবহণ দফতরের কাছে প্রস্তাব পাঠিয়েছে পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন। রাজ্য পরিবহন দফতর জেলার প্রয়োজনীয়তার কথা বিচার করে রেল দফতরকে সেই প্রস্তাব পাঠাবে বলে জানা গিয়েছে।

পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানান, '' দুটি বিশেষ ট্রেন পাওয়া গেলে যাত্রীদের সুষ্ঠভাবে গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার কাজে খুবই সুবিধা হবে।'' বর্ধমান রেল স্টেশনে এখন প্রতিদিনই দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিশেষ ট্রেনে হাজার-হাজার যাত্রী আসছেন। অনেক ট্রেনের যাত্রাপথ শেষ হচ্ছে বর্ধমান স্টেশনে। সে কারণে রাজ্যের অন্যান্য প্রান্তের যাত্রীদের সকলকেই এই স্টেশনে নামতে হচ্ছে। সেই সব যাত্রীদের শারীরিক পরীক্ষার পর, বিশেষ বাসের ব্যবস্থা করে তাঁদের নিজস্ব জেলায় পাঠিয়ে দিচ্ছে পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন। অনেক সময় স্টেশনে কত সংখ্যক যাত্রী নামবে, তাঁরা কে- কোন জেলার বাসিন্দা, সেসব তথ্য  থাকছে না জেলা প্রশাসনের কাছে। ট্রেন এসে গেলে একসঙ্গে অনেক বাসের ব্যবস্থা করতেও সমস্যা হচ্ছে জেলা প্রশাসনের। এমনিতেই লক ডাউনের জেরে এখন সরকারি বাসের কর্মী সংখ্যা কম। তাই একসঙ্গে শতাধিক বাস পাওয়া জেলা প্রশাসনের কাছে সমস্যার বিষয় হয়ে দাঁড়াচ্ছে। সে জায়গায় ট্রেন মিললে অনেক যাত্রীকেই খুব তাড়াতাড়ি হুগলি, শ্রীরামপুর, হাওড়ায় পাঠানো সম্ভব হবে বলে মনে করছে জেলা প্রশাসন।

জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানান, 'প্রচুর সংখ্যক যাত্রী আসছেন বর্ধমান স্টেশনে। রাজ্যের টার্মিনাল স্টেশনে পরিণত হয়েছে এই স্টেশন। পূর্ব বর্ধমান জেলা, বাঁকুড়া, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ,পুরুলিয়ার যাত্রীদের পৌঁছে দেওয়ার ক্ষেত্রে তেমন সমস্যা নেই  কিন্তু দূরবর্তী জেলার যাত্রীদের পাঠানোর ক্ষেত্রে খুবই সমস্যা হচ্ছে। এক্ষেত্রে বর্ধমান-হাওড়া ও বর্ধমান-রামপুরহাট শাখায় বিশেষ দুটি ট্রেনে পাওয়া গেলে আমরা যাত্রীদের শারীরিক পরীক্ষার পর তাঁদের খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা করে, তাঁদের সেইসব ট্রেনে হাওড়া বা রামপুরহাট পর্যন্ত পৌঁছে দিতে পারি। এই প্রস্তাব রাজ্য পরিবহন দফতরকে পাঠানো হয়েছে।

SARADINDU GHOSH

Published by: Rukmini Mazumder
First published: May 28, 2020, 9:45 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर