Home /News /south-bengal /

East Bardhaman: পূর্ব বর্ধমান জেলায় নতুন মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন ঘোষণা করা হল

East Bardhaman: পূর্ব বর্ধমান জেলায় নতুন মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন ঘোষণা করা হল

নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব চিত্র

East Bardhaman Micro Containment Zone: করোনার সংক্রমণ রুখতে এইসব জায়গায় নজরদারি আরও জোরদার করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন। এই নিয়ে পূর্ব বর্ধমান জেলায় ৪০টি এলাকায় মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন তৈরি করা হল ৷

  • Share this:

বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলায় নতুন করে ১৭টি জায়গাকে মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হল। করোনার সংক্রমণ রুখতে এইসব জায়গায় নজরদারি আরও জোরদার করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন। এই নিয়ে পূর্ব বর্ধমান (East Bardhaman) জেলায় ৪০টি এলাকায় মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন তৈরি করা হল (East Bardhaman Micro Containment Zone)।

আরও পড়ুন-তাঁর গাড়িতে কেন ধাক্কা ? রাগে গরীব ফল বিক্রেতার দোকানের ফল রাস্তায় ছুড়ে ফেললেন মহিলা ! দেখুন ভাইরাল ভিডিও

বর্ধমান শহরের পাশাপাশি মেমারি, কাটোয়া, ভাতারে মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন রয়েছে। এর মধ্যে বর্ধমান শহরে সাতটি মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন রয়েছে। বর্ধমান শহরের ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কানাইনাটশাল ও শ্রীপল্লি এলাকায় মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন রয়েছে। এছাড়াও ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের শাঁখারি পুকুর, বিবেকানন্দ কলেজ মোড়, ২৯ নম্বর ওয়ার্ডের মিঠাপুকুর, সিং দরজা, ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের বি বি ঘোষ রোডকে মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন।

গ্রামীন এলাকাগুলোর মধ্যে মেমারি ১ নম্বর ব্লকের রসুলপুর ছানা পুকুর এলাকা, মেমারি দুই নম্বর ব্লকের বিজুর গান্টে, জাবুই এলাকায় মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন করা হয়েছে। কাটোয়া দু’নম্বর ব্লকের ইসলামপুর, ভাতারের রবীন্দ্রপল্লী, কুল নগর, বেলেন্ডা, কালীপুকুর ও ভাতার বাজারকে মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। এইসব এলাকার ওপর বাড়তি নজরদারি ব্যবস্থা করা হয়েছে। করোনা আক্রান্ত এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা এমনকি তার আশপাশের বাড়ির সদস্যরাও যাতে বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া বাইরে যেতে না পারে বা বাইরে থেকে কেউ যাতে ওই এলাকায় না ঢুকতে পারে তা নিশ্চিত করতে পুলিশি নজরদারির ব্যবস্থা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন-শিকারকে তরলে পরিণত করে ফেলতে পারে এই বিষাক্ত প্রাণী, যত জানবেন শিহরণ জাগবে!

জেলা প্রশাসনের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, স্বাস্থ্য দফতরের পরিকল্পনা অনুযায়ী মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন তৈরি করা হচ্ছে। জেলা জুড়ে করোনার সংক্রমণ ব্যাপকভাবে বাড়ছে। সেই মত ব্লক স্তর থেকে মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন তৈরির প্রস্তাব আসছে। সেইসব প্রস্তাব খতিয়ে দেখার পরই নতুন নতুন এলাকাকে মাইক্রো কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হচ্ছে। এছাড়াও বেশ কিছু বাজারকে চিহ্নিত করা হয়েছে। ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় সেইসব বাজারগুলি রয়েছে। সেখানে শারীরিক দূরত্ব বিধি মানা হচ্ছে না। এইসব বাজারগুলিকে অপেক্ষাকৃত ফাঁকা জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published:

Tags: Coronavirus, East Bardhaman

পরবর্তী খবর