Home /News /south-bengal /
Durgapur: 'লালকি'কে খুঁজতে ৫ হাজার টাকার পুরস্কার ঘোষণা অসুস্থ দম্পতির

Durgapur: 'লালকি'কে খুঁজতে ৫ হাজার টাকার পুরস্কার ঘোষণা অসুস্থ দম্পতির

লালকি'র সন্ধানে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে বিভিন্ন জায়গায় তাঁরা পোষ্টার পর্যন্ত সাঁটিয়েছেন লালকি'র ছবি দিয়ে

  • Share this:

    #দুর্গাপুর: নিখোঁজ লালকি'কে খুঁজতে ৫০০০ টাকা পুরষ্কার ঘোষণা করলেন দুর্গাপুরের এক দম্পতি। লালকি'র সন্ধানে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে বিভিন্ন জায়গায় তাঁরা পোষ্টার পর্যন্ত সাঁটিয়েছেন লালকি'র ছবি দিয়ে।

    এই লালকি আসলে তাঁদের পোষ্য বিড়াল। ইন্দ্রজিৎ ভট্টাচার্য ও দেবস্মিতা ভট্টাচার্য নিসন্তান দম্পতি বসবাস করেন দুর্গাপুর শহরের বেনাচিতির রামকৃষ্ণ পল্লী তে।ইন্দ্রজিৎ বাবু শারীরিক ভাবে প্রতিবন্ধী এবং একটি বেসরকারি সংস্থার কর্মী ছিলেন । বর্তমানে অবশ্য কাজ হারিয়েছেন দীর্ঘ লকডাউনের কারণে।এছাড়াও দেবস্মিতা দেবী শারীরিক ভাবে অসুস্থ।

    লালকি তাঁদের পোষ্য বিড়াল। হলেও নিঃসন্তান ওই দম্পতির কাছে সন্তান তুল্য।

    প্রায় ৭ বছর আগে তাঁদের বিয়ে হয়েছে।আর্থিক অনটনে বর্তমানে চলছে তাঁদের জীবনযাপন। একাধিক সমস্যা ও যন্ত্রনার মধ্যে তাঁরা সন্তানের মত ভালোবাসে ও সেবাযত্ন করে চলেছেন এলাকার পথ সারমেয় সহ বিড়ালদের। কোনও সমাজসেবী সংগঠনের সাথে যুক্ত নন তাঁরা। তাঁদের দাবি, নিজেদের জীবনযুদ্ধে মনোবল বৃদ্ধি করতে ও ইশ্বরের আর্শীবাদ পেতেই তাঁরা পশুপাখি'র সেবায় নিয়োজিত করেছেন নিজেদের। যদিও এই কারণে এলাকার বেশ কিছু মানুষের কাছে তাঁরা তাচ্ছিল্যের শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ। তাঁরা বেনাচিতি রামকৃষ্ণ পল্লী এলাকায় একটি ভাড়া বাড়িতে থাকেন। প্রায় ৫ বছর ধরে এলাকার পথ সারমেয় ও বিড়ালের সেবা- যত্ন করে চলেছেন।

    এলাকার প্রায় ২০ টি বিড়াল ও ১০ টি সারমেয় তাঁদের পোষ্য হয়ে উঠেছে বর্তমানে। তাদের প্রত্যেকের নামকরণও করেছেন তাঁরা। অভিযোগ, বেশ কিছু এলাকাবাসী বিড়াল ও সারমেয় গুলির উপর অত্যাচার চালায়। শেষমেশ তাঁরা প্রায় ১৫ টি বিড়ালের নিরাপত্তা দিতে ঘরের ভেতর ' ক্যাট হাউস ' তৈরী করেছেন। এরই মধ্যে জানুয়ারি মাসে লালকি নামের বিড়ালটি নিখোঁজ হয়ে যায়। ওই দম্পতির মধ্যে শুরু হয় কান্নাকাটি। লালকি'র সন্ধান করতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘোষণা করা হয় অর্থ পুরষ্কার। পাশাপাশি পোষ্টার ছাপিয়ে আশপাশের এলাকার দেওয়ালে সাঁটানোও হয়।নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার পর প্রায় তিন মাস গেলেও লালকি'র খোঁজ এখনও সমানতালে বজায় রেখেছেন তাঁরা। সন্ধান পেতে লালকি'র ছবি ও বয়স সহ সব কিছুই উল্লেখ করেছেন সোশ্যাল মিডিয়া সহ পোষ্টারে।

    ইন্দ্রজিতবাবু বলেন, লালকি আমাদের সন্তান ও খুব আদরের আমাদের। প্রথমে তার সন্ধান পেতে ২০০০ হাজার টাকা পুরষ্কার রেখেছিলাম। এখনও না মেলায় স্ত্রী'র চিকিৎসার টাকা বাঁচিয়ে ৫০০০ টাকা পুরষ্কার রেখেছি। রোজগার এখন বন্ধ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু তাদের না খাইয়ে আমরা খেতে পারিনা। আমারা নানান সমস্যা ও জটিলতার মধ্যে জীবনযাপন করি। এলাকার বেশকিছু মানুষ সেই সব না বুঝে এই অবলা জীব গুলির ওপর অত্যাচার করেন।

    আরও পড়ুন - লেবু আর পাতি নয় ! ১০ টাকায় একটা পাতি লেবু ! আকাশ ছোঁয়া দাম ! কেন এত দাম? জানুন

    আরও পড়ুন - 'বাদাম কাকু' নয় এবার ভাইরাল 'ফুচকা কাকু' ! ছয় রকমের ফুচকা খাইয়ে চমকে দিলেন !

    দেবস্মিতাদেবী বলেন, আমি একজন সঙ্গীত শিল্পী। অসুস্থতার কারণে সব বন্ধ হয়ে গিয়েছে। স্বামী দু'বছর আগে করোনাকালে কাজ হারিয়েছেন। খুব আর্থিক সঙ্কটে রয়েছি। এই পরিস্থিতিতে আমার তিন মাসি ও বাপের বাড়ি'র লোকজন চিকিৎসার খরচের জন্য আর্থিক সহযোগীতা করছে। তাই এত প্রতিকূলতার মধ্যেও বেঁচে আছি। বিড়াল ও সারমেয়গুলি আমাদের বেঁচে থাকার প্রেরণা জোগায়।

    দুর্গাপুরের একজন বিশিষ্ট পশুপ্রেমী অবন্তিকা শ্যাম রায় বলেন, আমরাও নিখোঁজ বিড়ালটির সন্ধান রাখবো। এছাড়াও ওই এলাকার কোনও মানুষ যদি ওই অসহায় দম্পতি'কে কোনও রকম বিরক্ত করেন তাহলে তাঁদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

    Nayan Ghosh
    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Durgapur

    পরবর্তী খবর