জমিতে অতিরিক্ত কীটনাশকের ব্যবহার, নষ্ট হচ্ছে মৌমাছি পালন

জমিতে অতিরিক্ত কীটনাশকের ব্যবহার, নষ্ট হচ্ছে মৌমাছি পালন
  • Share this:

#আমতা: জমিতে কীটনাশক-রাসায়নিক সারের প্রভাব। তাতেই মার খাচ্ছে মৌমাছি পালন। কোনও মতে জেলায় মৌমাছি চাষ করে যাচ্ছে হাওড়ার আমতার বাসিন্দা মোহন মণ্ডল। তাঁর আক্ষেপ, সরকারের তরফে সাহায্য মিললে বাঁচবে এই শিল্প।

মধুর উপকারিতা অনেক। কাটা ঘা থেকে অনেক রোগে ওষুধের কাজ করে মধু। অথচ, বাজারের নকল মধুর মাঝে মার খাচ্ছে আসলটাই। সেইসঙ্গে রয়েছে মৌমাছি পালনের একাধিক সমস্যা। হাওড়ায় আমতা থলিয়ার বাসিন্দা মোহন মণ্ডল। নিজ উদ্যোগে ১৯৯৮ সাল থেকে মৌমাছি পালন করছেন।

- পৃথিবীতে প্রায় ৪৪ প্রজাতির মৌমাছি রয়েছে

- ভারতে ৭ প্রজাতির মৌমাছি দেখতে পাওয়া যায়

বাড়ির আশপাশে এভাবেই ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে বাক্স। তাতেই চলছে মৌমাছি চাষ। শুরু করেছিলেন ২টি বাক্স দিয়ে। এখন একশো কুড়িটি বাক্সে চলছে মৌমাছি পালন। ফুলের রস সংগ্রহ করে মধু তৈরি করে মৌমাছি। কিন্তু, উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য জমিতে কীটনাশকের ব্যবহার বেড়েছে। তাতেই ফুলের রস সংগ্রহ করতে পারছে না মৌমাছির দল।

কীটনাশকের ঝাঁঝে মৌমাছি পালনে ধাক্কা, সঙ্গে বাজারে নকল মধুর সঙ্গে লড়াই। দুইয়ের জেরে ক্ষতির মুখে মৌমাছি পালকরা। একসময় রাজ্যে মৌমাছি পালকের সংখ্যা ছিল ১২ হাজার ৭০০। এখন কোনও মতে মৌমাছি পালন করছেন ২ হাজার ৭০০ জন।

মৌমাছি পালনে অন্তরায় কীটনাশনেক ব্যবহার। রাসায়নিকের বদলে জৈব সার ব্যবহারে পদক্ষেপের আশ্বাস দিয়েছেন হাওড়া জেলা পরিষদের সহকারি সভাধিপতি।

এক জায়গায় বেশিদিন মধু সংগ্রহ হয় না। তাই মৌমাছির বাক্স নিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে পৌঁছে যান মোহন মণ্ডল। তাঁর আবেদন, সরকারি সাহায্য মিললে বাঁচবে এই শিল্প।

First published: 02:35:00 PM Dec 09, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर