বর্ধমানের সর্বমঙ্গলা মন্দিরে আর ভোগ বিতরণ নয়, করোনার জেরে সিদ্ধান্ত 

বর্ধমানের সর্বমঙ্গলা মন্দিরে আর ভোগ বিতরণ নয়, করোনার জেরে সিদ্ধান্ত 

সেই সিদ্ধান্তের কথা ব্যানার ফেস্টুনের মাধ্যমে ভক্তদের জানিয়েও দেওয়া হচ্ছে।

  • Share this:

#বর্ধমান: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে এবার বর্ধমানের সর্বমঙ্গলা মন্দিরে ভোগ বিতরণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল। বুধবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ভক্তদের ভোগ বিতরণ সম্পূর্ণ ভাবে বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছে মন্দির কর্তৃপক্ষ। সেই সিদ্ধান্তের কথা ব্যানার ফেস্টুনের মাধ্যমে ভক্তদের জানিয়েও দেওয়া হচ্ছে।

বর্ধমানে অধিষ্ঠাত্রী দেবী সর্বমঙ্গলাকে রাঢ় বঙ্গের দেবী বলা হয়। শুধু পূর্ব বর্ধমান নয়, বাঁকুড়া, বীরভূম, হুগলি সহ বিভিন্ন জেলা থেকে প্রতিদিন অগণিত ভক্ত মন্দিরে ভিড় করেন। সকালে মন্দিরে পুজো দিয়ে অন্নভোগ গ্রহণ করে বাড়ি ফেরেন তাঁরা। সেই জমায়েত থেকে করোনার সংক্রমণ ছড়াতে পারে এই আশঙ্কা থেকেই ভোগ বিতরণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে মন্দির সূত্রে জানা গিয়েছে।

সর্বমঙ্গলা মন্দির ট্রাস্ট বোর্ডের সম্পাদক সঞ্জয় ঘোষ জানান, বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। রাজ্য সরকার এক সঙ্গে অনেক মানুষকে জমায়েত না হওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন। সেসব কথা মাথায় রেখেই আমরা ভক্তদের মধ্যে ভোগ বিতরণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এখানে প্রতিদিন গড়ে ৪০০ পুরুষ মহিলা একসঙ্গে বসে ভোগ গ্রহণ করেন। এছাড়াও অনেকে মালসা ভোগ নিয়ে যান। বুধবার থেকে সেসব বন্ধ থাকছে। বুধবার থেকে শুধুমাত্র মায়ের পুজোর জন্য যতটুকু প্রয়োজন ততটুকু ভোগই রান্না হবে।

ভোগ বিতরণ বন্ধ থাকলেও সর্বমঙ্গলা মন্দিরে পুজো দেওয়ার ক্ষেত্রে কোনও বাধা থাকছে না। সম্পাদক সঞ্জয় ঘোষ জানান, আগের মতোই পুজো দেওয়া যাবে। তবে মন্দিরের গর্ভগৃহে একসঙ্গে অনেককে ঢুকতে নিষেধ করা হচ্ছে। ভক্তদের বলা হচ্ছে অন্যের সঙ্গে নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রাখুন। মন্দিরে যাতে একসঙ্গে অনেকে ভিড় না করেন তা নিশ্চিত করবে পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবকরা। একই ভাবে বর্ধমানের একশো আট শিব মন্দির, বীরহাটায় বড় মা কালী মন্দিরে যাতে একসঙ্গে অনেকে ভিড় না করে তা নিশ্চিত করতে মন্দির কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানিয়েছে প্রশাসন। যে কোনও জনবহুল এলাকা এড়িয়ে চলারই পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে বাসিন্দাদের।

First published: March 17, 2020, 3:05 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर