তালিকা প্রকাশ হতেই এলাকায় অসন্তোষ, দুবরাজপুরের তৃণমূল প্রার্থী অসীমা ধীবরকে প্রচারে নিষেধ! কিন্তু কেন?

তালিকা প্রকাশ হতেই এলাকায় অসন্তোষ, দুবরাজপুরের তৃণমূল প্রার্থী অসীমা ধীবরকে প্রচারে নিষেধ! কিন্তু কেন?

দুবরাজপুরের তৃণমূল প্রার্থী অসীমা ধীবর।

বীরভূমের দুবরাজপুর বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অসীমা ধীবরকে আপাতত প্রচারে যেতে নিষেধ করল বীরভূম জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব।

  • Share this:

#দুবরাজপুর: বীরভূমের দুবরাজপুর বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অসীমা ধীবরকে আপাতত প্রচারে যেতে নিষেধ করল বীরভূম জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। অসীমার দাবি, দুবরাজপুর কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থী বদলের বিপুল সম্ভাবনা। কালীঘাট থেকে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল রাজ্যের ২৯১ টি বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করে। তালিকা ঘোষণার পর রাজ্যের একাধিক জায়গায় ক্ষোভ-বিক্ষোভ শুরু হয়। এ বার সেই একই ছবি ধরা পড়ল বীরভূমের দুবরাজপুর বিধানসভায়।

দুবরাজপুর বিধানসভায় তৃণমূলের প্রার্থী অসীমা ধীবরের নাম ঘোষণা করা হলেও এখনও দেওয়াল লিখন শুরু হয়নি সেভাবে। মাত্র এক দু জায়গা ছাড়া আর কোথাও তার নাম নেই। আসলে নাম না থাকার মূলে রয়েছে প্রার্থী নিয়ে ক্ষোভ। দুবরাজপুর বিধানসভা এলাকায় দলের একাংশ অসীমা ধীবরকে প্রার্থী হিসেবে মেনে নিতে পারছেন না। এমনকি তারা প্রার্থী বদলের জন্য বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে অভিযোগও জানিয়েছেন। তবে সত্যিই প্রার্থী বদল হয় কিনা তা আগামী দুই-তিন দিনের মধ্যে জানা যাবে।

উলেখ্য, এই বিধানসভা কেন্দ্রের আগে বিধায়ক ছিলেন তৃণমূলের নরেশচন্দ্র বাউড়ি। তবে তিনি এ বছর টিকিট পাননি। ফলে ক্ষোভ দেখা দিয়েছিল তার মনেও। গতকাল বোলপুরে ছিল তৃণমূলের মহিলা সম্মেলন৷ সেই সম্মেলনেই দুবরাজপুর কেন্দ্রের প্রার্থীকে, প্রচার করতে নিষেধ করা হয়েছে বলে দাবি অসীমা ধীববের। তাঁকে দলের প্রচার করতে বলেছেন অনুব্রত মন্ডল। তবে দল ছাড়ার কোনও প্রশ্নই নেই, জানিয়েছেন অসীমা। তাঁর দাবি, প্রথম থেকেই তিনি তৃণমূলের সঙ্গে যুক্ত। তাই দল যা সিদ্ধান্ত নেবে সেটাই মানবেন তিনি।

অসীমা জানান, যদি এই ব্যাপারটা আগেই বলে দিতেন অনুব্রত মণ্ডল, তাহলে আগে থেকেই তিনি প্রচারে নামতেন না। তাঁর দাবি, এতে তার নিজের এবং দলের অসম্মান হচ্ছে।

Supratim Das

Published by:Shubhagata Dey
First published: