Duare Ration : কবে থেকে চালু হবে রাজ্যের দুয়ারে রেশন প্রকল্প? জেলাশাসকের ইঙ্গিত দিলেন মুখ্যমন্ত্রী

রাজ্যে 'দুয়ারে রেশন' প্রকল্প প্রতীকী ছবি

রাজ্য সরকারের দুয়ারে রেশন প্রকল্প (Duare Ration Scheme) শুরু নিয়ে কিছুটা ইঙ্গিত দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সম্ভবত আগামী অগস্ট মাস থেকেই শুরু হতে চলেছে এই প্রকল্প। সোমবার জেলাশাসকের সঙ্গে বৈঠকে এমনই ইঙ্গিত দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (CM Mamata Banerjee)।

  • Share this:

    #কলকাতা : রাজ্য সরকারের দুয়ারে রেশন প্রকল্প (Duare Ration Scheme) শুরু নিয়ে কিছুটা ইঙ্গিত দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সম্ভবত আগামী অগস্ট মাস থেকেই শুরু হতে চলেছে এই প্রকল্প। সোমবার জেলাশাসকের সঙ্গে বৈঠকে এমনই ইঙ্গিত দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (CM Mamata Banerjee)। পরীক্ষামূলক ভাবে চালু হলেও এই দুয়ারে রেশন স্কিম  (Duare Ration Scheme) এখনও রাজ্যের সর্বত্র চালু করা যায়নি। যদিও নবান্ন সূত্রে খবর সব ঠিকভাবে এগোলে অগস্ট মাসেই চালু হয়ে যাবে এই প্রকল্প।

    নবান্ন সূত্রে খবর, এদিন জেলাশাসকের সঙ্গে এই প্রকল্প চালু করা নিয়ে কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী। উপস্থিত ছিলেন খাদ্য দফতরের আধিকারিকরাও। এই বৈঠকের আলোচনা থেকে উঠে আসে দুয়ারে রেশন করতে আরও দুই থেকে তিন মাস সময় লাগবে সরকারের। কারণ এখনও পর্যন্ত অনেকের আধার লিঙ্ক করা সম্ভব হয়নি। আর সেটা করতে আরও খানিকটা সময় লাগবে। সোমবার জেলাশাসক এবং খাদ্য দপ্তর এর সঙ্গে বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী এমনটাই আলোচনা করেন বলে নবান্ন সূত্রে খবর।

    বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে ক্ষমতায় এলে এই 'দুয়ারে রেশন' প্রকল্প শুরু করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তৃণমূলের ইস্তেহারেও অন্যতম বড় চমক ছিল এই প্রকল্প৷ করোনা অতিমারির সময়ে দেরি না করে দ্রুত এই প্রকল্প শুরু করে দিতে চাইছে রাজ্য সরকার৷ পাইলট প্রকল্পে প্রতিটি জেলায় একটি করে রেশন দোকান থেকে সংলগ্ন একটি পাড়া বা গ্রামে বাড়ি বাড়ি গিয়ে রেশন পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়৷ 'দুয়ারে রেশন' প্রকল্প নিয়ে রাজ্যের খাদ্য দফতরের প্রধান সচিবের সঙ্গে ফুড কমিশনারের বৈঠকের পরেই পাইলট প্রকল্প শুরু হয়৷ বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় এই প্রকল্প চালানোর জন্য প্রতি কুইন্টালে ২০০ টাকা করে রেশন ডিলারদের কমিশন দিতে হবে৷ প্রথম ১৫ দিন রেশন দোকান থেকেই এই প্রকল্পের জন্য জিনিস নিয়ে সরবরাহ করবেন রেশন ডিলাররা৷ প্যাকেজিং বাবদও আলাদা খরচ দেবে রাজ্য৷

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: