Home /News /south-bengal /
#EgiyeBangla: পানীয় জল, সেচের কাজ সবটাই হচ্ছে এখন, হাসি ফুটেছে বাঁকিবাঁধ গ্রামে

#EgiyeBangla: পানীয় জল, সেচের কাজ সবটাই হচ্ছে এখন, হাসি ফুটেছে বাঁকিবাঁধ গ্রামে

সমস্যা মিটল জলের ৷ নিজস্ব চিত্র ৷

সমস্যা মিটল জলের ৷ নিজস্ব চিত্র ৷

পানীয় জল ও সেচের জলের সমস্যায় জেরবার ছিল পশ্চিম মেদিনীপুরের শালবনির বাঁকিবাঁধ গ্রাম পঞ্চায়েত। রাজ্যে নতুন সরকার ক্ষমতায় আসার পরই মিটেছে সমস্যা। পানীয় জলের জন্য তৈরি হয়েছে গভীর নলকূপ। চাষের জন্য বিভিন্ন এলাকায় সেচের ব্যবস্থাও করা হয়েছে।

আরও পড়ুন...
  • Share this:

    #শালবনি: পানীয় জল ও সেচের জলের সমস্যায় জেরবার ছিল পশ্চিম মেদিনীপুরের শালবনির বাঁকিবাঁধ গ্রাম পঞ্চায়েত। রাজ্যে নতুন সরকার ক্ষমতায় আসার পরই মিটেছে সমস্যা। পানীয় জলের জন্য তৈরি হয়েছে গভীর নলকূপ। চাষের জন্য বিভিন্ন এলাকায় সেচের ব্যবস্থাও করা হয়েছে। পশ্চিম মেদিনীপুরের শালবনির বাঁকিবাঁধ গ্রাম পঞ্চায়েত। এখানে বেশিরভাগ মানুষই আদিবাসী সম্প্রদায়ের। খরা প্রবণ বাঁকিবাঁধে থাবা বসিয়েছিল অনুন্নয়ন। জলের সমস্যায় জেরবার ছিলেন বাসিন্দারা। গরমে বাঁকিবাঁধের অবস্থা হত ভয়াবহ। পানীয় জল থেকে চাষের সেচের জল পাওয়া যেত না কিছুই। তৃষ্ণার্ত গলায় বাঁকিবাঁধ বারবার দাবি জানিয়েছে, মিটে যাক জল সংকট। রাজ্যে নতুন সরকার ক্ষমতায় আসার পর দিন বদলেছে। তেষ্টা পেলে আর মেপে জল খেতে হয় না। চাষের জলও এখন অফুরন্ত।

    আরও পড়ুন: #EgiyeBangla: রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে বই, ভ্রাম্যমান গ্রন্থাগার শুরু হল রাজ্যের উদ্যোগে

    জলসংকট মুক্ত বাঁকিবাঁধ ----------------------- - গভীর নলকূপ খনন করা হয়েছে - পঞ্চায়েতের ১৫টি সংসদেই জলের ব্যবস্থা - দিনে ৩ বার স্থানীয় বাসিন্দাদের জল সরবরাহ - চাষের জন্য মিনি সেচের ব্যবস্থা - জল ধরো জল ভরো প্রকল্পে পুকুর খনন - ১০০ দিনের কাজে দিঘি খনন

    রোদে কয়েক কিলোমিটার হেঁটে পানীয় জল আনতে যেতে হত। এখন মিটেছে সমস্যা। জল নিয়ে ভাবনা কেটেছে বাঁকিবাঁধের মানুষের। জলের নামে আর চোখে জল আসে না। এখন মুখে হাসি বাঁকিবাঁধ গ্রাম পঞ্চায়েতের।

    First published:

    Tags: Banki Badh village, Drinking water and Irrigation system, Egiye Bangla

    পরবর্তী খবর