Home /News /south-bengal /
বিজেপি ভোটে হারায় SAIL-এর দফতর কলকাতা থেকে সরছে? ধর্মেন্দ্র প্রধানকে চিঠি অমিত মিত্রর

বিজেপি ভোটে হারায় SAIL-এর দফতর কলকাতা থেকে সরছে? ধর্মেন্দ্র প্রধানকে চিঠি অমিত মিত্রর

কেন্দ্রের এমন একটা সিদ্ধান্তে করোনা মহামারীর মাঝেই বহু মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়বেন।

  • Share this:

    #কলকাতা:

    বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনে হারার পরই স্টিল অথরিটি অফ ইন্ডিয়া লিমিটেডের কাঁচামাল বিভাগের দফতর কলকাতা থেকে সরাচ্ছে কেন্দ্র! এমনই গুরুতর অভিযোগ করলেন বাংলার অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। sail-এর গুরুত্বপূর্ণ দফতর কলকাতা থেকে না সরানোর আর্জি জানিয়ে কেন্দ্রীয় ইস্পাতমন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধানকে চিঠি লিখলেন তিনি। sail-এর কর্মচারীরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি লিখে ব্যাপারটি জানিয়েছিলেন। তাই এবার রাজ্য প্রশাসন এই ব্যাপারে কেন্দ্রের দৃষ্টি আকর্ষণ করল। কেন্দ্রের এমন একটা সিদ্ধান্তে করোনা মহামারীর মাঝেই বহু মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়বেন। এমনিতেই করোনার জেরে বহু মানুষ কাজ হারিয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে sail-এর এই গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ অন্য জায়গায় সরলে আরও অনেক কর্মী নতুন করে কর্মহীন হয়ে পড়বেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তা ছাড়া এই গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ সরলে বাংলার দুটি গুরুত্বপূর্ণ শিল্পাঞ্চলেরও ব্যাপক ক্ষতি হবে।

    sail-এর কাঁচামাল বিভাগটি কলকাতায় রয়েছে। র মেটেরিয়াল ডিভিশন বা আরএমডি-র এই দফতরে ১৫০ জন স্থায়ী কর্মী রয়েছেন। তবে সব থেকে বেশি চিন্তায় রয়েছেন অস্থায়ী কর্মচারীরা। কেন্দ্র সেইল-এর এই বিভাগ কলকাতা থেকে সরিয়ে নিলে অস্থায়ী কর্মচারীরা কর্মহীন হয়ে পড়বে। তাই আসন্ন বিপদের আশঙ্কা করে এখন থেকেই রাতের ঘুম উড়েছে অস্থায়ী কর্মীদের। তার উপর দূর্গাপুর স্টিল প্লান্ট এবং ইসকো, দুটি রাষ্ট্রায়াত্ত শিল্প সংস্থাও সমস্যায় পড়বে। তাই এদিন ধর্মেন্দ্র প্রধানকে চিঠি লিখে এমন সিদ্ধান্ত বদলানোর আর্জি জানিয়েছেন অমিত মিত্র। কর্মী ও বাংলার শিল্পাঞ্চলের কথা ভেবে কেন্দ্রকে এই সিদ্ধান্ত বদল করার আর্জি জানিয়েছেন তিনি।

    চিঠিতে অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র লিখেছেন, সেইল কাঁচামালের দফতর কলকাতা থেকে সরিয়ে নিলে বহু মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়বেন। তা ছাড়া দুর্গাপুর ও বার্নপুর ইস্পাত শিল্পের উপর ব্যাপক প্রভাব পড়বে। বর্তমানে দুর্গাপুর শিল্পাঞ্চল ৭০০ টাকা করে কাঁচামাল পায় এই দফতরের সৌজন্যে। কিন্তু সেই সেইলের এই দফতর বন্ধ হয়ে গেলে খোলাবাজার থেকে এই কাঁচামাল প্রায় ১০ হাজার টাকায় কিনতে হবে। যার জেরে জিনিসপত্রের দাম বাড়বে হু হু করে। কেন্দ্র এই সিদ্ধান্ত না বদলালে দুর্গাপুর শিল্পাঞ্চল ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়বে আগামীদিনে।

    Published by:Suman Majumder
    First published:

    পরবর্তী খবর