• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • Dilip Ghosh: পুলিশের মুখোমুখি দিলীপ ঘোষ, বর্ধমানে ধুন্ধুমার কাণ্ড

Dilip Ghosh: পুলিশের মুখোমুখি দিলীপ ঘোষ, বর্ধমানে ধুন্ধুমার কাণ্ড

দিলীপ ঘোষের প্রতিবাদ

দিলীপ ঘোষের প্রতিবাদ

Dilip Ghosh: দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বে বিজেপির আন্দোলনে ঘিরে ধুন্ধুমার কান্ড বর্ধমানে, উত্তেজনা 

  • Share this:

    #বর্ধমান: দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বে বিজেপির মিছিলকে ঘিরে ধুন্ধুমার কান্ড ঘটলো বর্ধমানে। শুক্রবার বিকেলে বর্ধমানের বীরহাটায় পুলিশ বিজেপির মিছিলের পথ আটকালে ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় বিজেপি কর্মীদের। এরপর ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা করে বিজেপি। পুলিশ তাতে বাধা দেয়। এরপর পুলিশের ভূমিকার প্রতিবাদ জানিয়ে জি টি রোডের ওপর বসে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন দিলীপ ঘোষ সহ দলের নেতাকর্মীরা।

    এ রাজ্যে পেট্রোল ডিজেলের দাম কমানোর দাবিতে মিছিলের কর্মসূচি নিয়েছিল বিজেপি। বর্ধমানের বীরহাটা থেকে কার্জন গেট পর্যন্ত মিছিল করার কর্মসূচি নিয়েছিল তারা। দলের সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বে সেই মিছিলের কথা আগাম প্রচার করেছিল বিজেপি। মিছিল শুরুর আগে থেকেই বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয় বীরহাটা বাঁকা নদীর ব্রিজের সামনে। সেখানে বিজেপির মিছিলে এলে পুলিশ পথ আটকায়। এরপর সেই কর্মসূচিতে যোগ দেন দিলীপ ঘোষ, রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় সহ জেলা নেতারা। এরপর পুলিশের ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা হয়। তখনই ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দেয়। পুলিশের সঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ ধস্তাধস্তি, হাতাহাতি চলে। এরপর সেখানে অবস্থানে বসেন দিলীপ ঘোষসহ রাজ্য ও জেলা নেতারা।

    পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিনের মিছিলের কোনও অনুমতি নেয়নি বিজেপি। এ ব্যাপারে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, কর্মসূচির কথা পুলিশকে আগাম জানানো হয়েছিল। অনুমতি নেওয়ার কোন প্রয়োজন ছিল না।

    আরও পড়ুন: শান্তিকুঞ্জে নতুন আয়োজন, রঙিন পাঞ্জাবিতে সেজে উঠলেন শুভেন্দু অধিকারী

    তিনি বলেন,পুলিশের সাথে ঝগড়া মারামারি করতে আসি নি।সাধারন মানুষের কষ্ট লাঘব করতে পেট্রোল ডিজেলের দাম কমানোর জন্য আন্দোলন করে মানুষকে সচেতন করতে এবং সরকারের ঘুৃম ভাঙাতে এসেছি।কেন্দ্র ট্যাক্স কমিয়েছে।অনেক রাজ্যও কমিয়েছে।পশ্চিমবঙ্গ সরকার বলে এগিয়ে বাংলা,সেই বাংলা এখন পেট্রোল ডিজেলের দামে এগিয়ে।আমরা রাস্তায় নেমেছি পুলিশ আমাদের ব্যারিকেড করে আটকে দিয়েছে।জন জাগরনের আন্দোলন তাতে ভয় কিসের?ব্যারিকেড লাগিয়ে,পুলিশ লাগিয়ে রাস্তা জ্যাম করে দেওয়া হয়েছে।এ রাজ্যে পুলিশ কোনও গণতান্ত্রিক আন্দোলন করতে দিচ্ছে না।

    আরও পড়ুন: নন্দীগ্রাম মামলা কি ভিন রাজ্যে? মমতা-শুভেন্দু দ্বৈরথে সব নজর ১৫ নভেম্বরের দিকে

    তিনি বলেন,কোচবিহারে গরু পাচারকারীরা মারা গেছে তাতে উদয়ন গুহর খুব কষ্ট হচ্ছে।ওরা কী তার ভোটার?এরাই শীতলখুচিতে গোলমাল করেছিল।বাংলাদেশীরা এসে গোলমাল করছে, বিএসএফ আটকাতে চাইলেই নানান সমালোচনা হচ্ছে।বাংলাদেশীদের স্বার্থে কেন উদয়ন গুহ বক্তব্য রাখছে?এরাই আসলে তৃনমূলকে জেতাচ্ছে।

    Published by:Suman Biswas
    First published: