Dilip Ghosh on Mamata's Ban: বিতর্কিত মন্তব্য অভিযুক্ত নিজেও, পুরো নির্বাচনেই মমতাকে 'নিষিদ্ধ' চান দিলীপ!

Dilip Ghosh on Mamata's Ban: বিতর্কিত মন্তব্য অভিযুক্ত নিজেও, পুরো নির্বাচনেই মমতাকে 'নিষিদ্ধ' চান দিলীপ!

মমতাকে নিয়ে নতুন দাবি দিলীপের

শীতলকুচিতে ৪ নয়, ৮ জনকে গুলি করে মারা উচিৎ ছিল বলে মন্তব্য করেছিলেন তিনি। কিন্তু দিলীপ ঘোষের (Dilip Ghosh) ক্ষেত্রে এখনও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

  • Share this:

    #কলকাতা: নির্বাচনী প্রচারে একাধিকবার প্ররোচনামূলক মন্তব্য করেছেন, এই অভিযোগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) প্রচারে ২৪ ঘণ্টার নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে নির্বাচন কমিশন। অপরদিকে, পঞ্চম দফা ভোটের আগে নজিরবিহীনভাবে ভোটের ৭২ ঘণ্টা আগেই প্রচারপর্ব শেষ করার নির্দেশ দিয়েছে। ফলে আজ রাত দশটাতেই শেষ হচ্ছে পঞ্চম দফার আসনগুলিতে প্রচারপর্ব। যদিও কমিশনের নির্দেশের বিরুদ্ধে তৃণমূলের তরফে সর্বাত্মক ভাবে এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করা হচ্ছে। প্রশ্ন তোলা হয়েছে 'দিকে-দিকে শীতলকুচি হবে' মন্তব্য করা দিলীপ ঘোষকে কেন ব্যান করা হচ্ছে না? ঘটনাচক্রে এদিন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহার প্রচারে ৪৮ ঘণ্টা নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে নির্বাচন কমিশন (Election Commission)। শীতলকুচিতে ৪ নয়, ৮ জনকে গুলি করে মারা উচিৎ ছিল বলে মন্তব্য করেছিলেন তিনি। কিন্তু দিলীপ ঘোষের (Dilip Ghosh) ক্ষেত্রে এখনও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। দিলীপ অবশ্য নিজে দাবি করছেন, গোটা নির্বাচন পর্বের জন্যই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করা উচিৎ।

    মঙ্গলবার বহরমপুরে এক চা চক্রে যোগ দিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, 'নির্বাচন কমিশনের কাছে লিখিত আবেদন করেছিলাম আমরা। নির্বাচন কমিশন বিচার করেছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্বাচনী প্রচার করলে উত্তেজনা বাড়বে গোটা বাংলায়। উনি প্রচার বিকৃত করার চেষ্টা করছেন।'

    নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার সকালেই গান্ধীমূর্তির পাদদেশে ধরনায় বসেছেন মমতা। কোনও রাজনৈতিক পতাকা ছাড়া, স্লোগান ছাড়া একাই ধরনা দিচ্ছেন তৃণমূল নেত্রী। মমতার ধরনায় বসার সিদ্ধান্ত প্রসঙ্গেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি দিলীপ। বলেন, 'আমি তো বলেছিলাম পুরো নির্বাচন থেকে ওনাকে নিষিদ্ধ করা হোক। তবে দুর্ভাগ্য এখানেই, উনি সবকিছুর বিরুদ্ধে রাস্তায় আন্দোলন করছে।'

    দিলীপের সংযোজন, 'আমি তো চেয়েছিলাম ওনাকে যেন পুরো প্রচার থেকেই সরিয়ে দেওয়া হয়। উনি যেভাবে উত্তেজনা ছড়াচ্ছেন গোটা নির্বাচন পর্বে, দিকেদিকে সাম্প্রদায়িক কথা বলছেন, তা নির্বাচনকে বিঘ্নিত করতেই করা হচ্ছে। আমরা নির্বাচন কমিশনের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছিলাম। তা দেখেই নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত নিয়েছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারকে ২৪ ঘণ্টার জন্য নিষিদ্ধ করার। আমি তো বলেছিলাম পুরো নির্বাচনের প্রচার থেকেই তাঁকে দূরে সরিয়ে দেওয়া হোক।'

    দিলীপ এহেন দাবি তুললেও রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে মমতার একক নিঃস্তব্ধ প্রতিবাদ তাঁকে বাকি চার দফার ভোটে ডিভিডেন্ট দিতে পারেন। এই আশঙ্কা থেকেই দিলীপ ঘোষরা এখন মমতাকে পুরোপুরি ব্যান করার দাবি করছেন।

    Published by:Suman Biswas
    First published: