corona virus btn
corona virus btn
Loading

দিঘাপ্রেমীদের জন্য সুখবর, আজ থেকেই খুলছে সৈকতশহর

দিঘাপ্রেমীদের জন্য সুখবর, আজ থেকেই খুলছে সৈকতশহর
এতদিন এমনটাই ছিল দিঘার ছবি।

আলোচনায় ঠিক হয়েছে, প্রথম ধাপে দিঘার অন্তত ৩০ শতাংশ হোটেল পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে।

  • Share this:

#পূর্ব মেদিনীপুর: করোনা আবহের মধ্যেই দীর্ঘ লকডাউনের ধাক্কা সামলে আবারও ছন্দে ফেরার প্রয়াস। পর্যটকদের থাকার জন্য খুলে যাচ্ছে পর্যটন শহর দিঘা।  দিঘা-শংকরপুর হোটেলিয়ারর্স অ্যাসোসিয়েশানের কর্মকর্তারা বৈঠক করে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। বৈঠকে ঠিক হয়েছে, আজ বৃহস্পতিবার থেকেই পর্যটকের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে দিঘার হোটেল।

ইতিমধ্যে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে ৮ জুন থেকে হোটেল খোলার বিষয়ে গ্রিন সিগন্যাল মিলেছে। তা নিয়েই  দিঘায়  বৈঠক করেন হোটেলিয়ারর্স অ্যাসোসিয়েশানের কর্মকর্তারা। বৈঠকে বসে হোটেল মালিকদের এই সংগঠনের সদস্যরা সবাই এক মত হয়েই  সেই বৈঠকে হোটেল খোলার বিষয়ে সম্মত হন।

তবে হোটেল খোলার ক্ষেত্রে খুব বেশি তাড়াহুড়ো করতে নারাজ মালিকদের একাংশ। এই মুহূর্তে দিঘা জুড়ে প্রায় সাড়ে ৫০০ থেকে ৬০০ ছোট বড় হোটেল রয়েছে। এর মধ্যে প্রথম সারির প্রায় ২০০  হোটেল মালিক এই সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত। তাঁরাই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। নিজেদের আলোচনায় ঠিক হয়েছে,  প্রথম ধাপে দিঘার অন্তত ৩০ শতাংশ হোটেল পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে।

করোনার কঠিন সময়ের মধ্যেই কিছুটা হলেও ঘুরে দাঁড়ানোর লক্ষ্যে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে হোটেল মালিকরা। তবে পরিস্থিতি পুরোদস্তুর স্বাভাবিক না হওয়ায় এই মুহূর্তে কেবলমাত্র সমূদ্র ও শহর লাগোয়া ৩০ শতাংশ হোটেলকেই খুলতে চলেছে বলে খবর। এই হোটেলগুলি আবার তাদের ৩০ শতাংশ ঘর পর্যটকদের জন্য খুলে দেবে। কর্মীসংখ্যাও মোটামুটি শতাংশ থাকবে।

গ্রামগঞ্জের দিকে হোটেলগুলি এখনই খুলতে নিষেধ করা হয়েছে। এদিকে, হোটেলিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশানের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, হোটেল মালিকদেরই কর্মচারী ও পর্যটকদের সুরক্ষার দিকটি নিশ্চিত করতে হবে। হোটেলগুলিকে প্রতিনিয়ত স্যানিটাইজ রাখা এবং করোনা যাতে না ছড়ায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। ইতিপূর্বে জেলার অন্যতম একটি পর্যটন কেন্দ্র মন্দারমনি পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে। মান্দারমনিতে কম সংখ্যক হোটেল খোলার পর এবার দিঘাতেও একই ভাবে স্বল্প সংখ্যক হোটেলের দরজা খুলে যাচ্ছে পর্যটকদের জন্য। এই সিদ্ধান্ত পর্যটকদের কতটা উৎসাহিত করে সেটাই এখন দেখার।

SUJIT BHOWMIK

Published by: Arka Deb
First published: June 11, 2020, 9:19 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर