'শুভেন্দু বিশ্বাসঘাতক নন', তৃণমূলে থেকেও 'দাদা'র জন্য জোর সওয়াল 'ভাই'য়ের

'শুভেন্দু বিশ্বাসঘাতক নন', তৃণমূলে থেকেও 'দাদা'র জন্য জোর সওয়াল 'ভাই'য়ের

শুভেন্দুর জন্য সওয়াল দিব্যেন্দুর

ভাঙাবেড়িয়ায় শহিদ বেদিতে নন্দীগ্রাম দিবস উপলক্ষ্যে আলাদা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে তৃণমূল-বিজেপি।

  • Share this:

    #কলকাতা: সব নজর নন্দীগ্রামে। আগামী বিধানসভা ভোটের ভরকেন্দ্র হয়ে উঠেছে এই নন্দীগ্রাম। যুযুধান দুই প্রতিদ্বন্দ্বীর নাম মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায় ও শুভেন্দু অধিকারী। এরই মধ্যে নন্দীগ্রামের ভোট প্রচারে গিয়ে স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আহত হওয়ার ঘটনা নতুন মাত্রা যোগ করেছে। আর আজ, ১৪ মার্চ নন্দীগ্রাম দিবস উপলক্ষ্যে উত্তপ্ত হয়ে উঠল জমি আন্দোলনের ধাত্রীভূমি। ভাঙাবেড়িয়ায় শহিদ বেদিতে নন্দীগ্রাম দিবস উপলক্ষ্যে আলাদা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে তৃণমূল-বিজেপি। আর তা নিয়েই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে নন্দীগ্রাম। কখনও শুভেন্দু অধিকারীকে ভাঙাবেড়িয়ায় আসার বিরুদ্ধে তৃণমূলের স্লোগান, আবার কখনও তৃণমূল নেতা ব্রাত্য বসুকে কেন্দ্র করে বিজেপির 'গো ব্যাক' স্লোগান। এরই মাঝে নন্দীগ্রামে ঢুকে এখনও পর্যন্ত তৃণমূল সাংসদ তথা শুভেন্দু অধিকারীর ভাই দিব্যেন্দু অধিকারী সাফ দাবি করলেন, 'কোনও বিশ্বাসঘাতকতা করেননি শুভেন্দু।'

    রবিবার ভাঙাবেড়িয়ার শহিদ বেদিতে মাল্যদান করে দিব্যেন্দু বলেন, 'নন্দীগ্রাম দিবসকে কেন্দ্র করে প্রতিবছর আমরা আসি। আমি এলাকার সাংসদ হিসেবে শহিদ বেদিতে মাল্যদান করেছি। ব্রাত্য বসুকে গো ব্যাক স্লোগানের বিষয়ে আমি জানি না। বাংলায় অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হওয়া উচিৎ।' এরপরই তৃণমূলের 'বিশ্বাসঘাতক' আক্রমণের পালটা দিব্যেন্দু বলেন, 'কখনই এ কথা বলা যাবে না, শুভেন্দু অধিকারী বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন।'

    প্রসঙ্গত, 'শান্তিকুঞ্জের' বাসিন্দাদের মধ্যে শিশির অধিকারী ও দিব্যেন্দু অধিকারী এখনও তৃণমূলের সাংসদ। যদিও রাজনৈতিক মহলের মতে, তাঁদের দুজনেরও গেরুয়া শিবিরে নাম লেখানো এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। জল্পনা তুঙ্গে উঠিয়ে শনিবার কাঁথির অধিকারী বাড়িতে গিয়ে শিশিরের সঙ্গে বৈঠক করেছেন সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়। সামনেই ২৪ মার্চ কাঁথিতে প্রধানমন্ত্রীর জনসভা। সেই জনসভাতেই শিশিরকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন লকেট। সূত্রের খবর, শুভেন্দুর ইশারা পেলেই সেই জনসভায় হাজির হতে পারেন শিশির ও দিব্যেন্দু দুজনেই।

    অপরদিকে, দিনের শুরুতেই 'প্রিয়' নন্দীগ্রামের জন্য টুইট করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা নন্দীগ্রামের তৃণমূল প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নন্দীগ্রামের প্রার্থী হয়ে তিনি যে গর্বিত সে কথাও লিখেছেন তিনি। ‘নন্দীগ্রাম দিবসে’র স্মৃতি উস্কে ট্যুইটে তিনি লেখেন, ‘২০০৭ সালের আজকের দিনে নন্দীগ্রামে গুলিতে মৃত্যু হয় নিরীহ গ্রামবাসীদের। অনেকের দেহ পাওয়া যায়নি। রাজ্যের ইতিহাসে আজকের দিনটি একটি কালো দিন। নন্দীগ্রামে নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাই।’

    Published by:Suman Biswas
    First published: