কথা বলছেন মূক ও বধিররা ! অভিনব আবিষ্কার বাঙালির

কথা বলছেন মূক ও বধিররা ! অভিনব আবিষ্কার বাঙালির

এমনই এক ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে, যার মধ্যে দিয়ে অবিনতব্ত প্রমাণিত হয়েছে

  • Share this:

#বর্ধমান: মূক-বধিরদের জন্য সু-খবর । এখন থেকে আর শুধুমাত্র  ইশারায় তাদের মনের ভাব প্রকাশ করতে হবে না। এবার থেকে একটি যন্ত্রের সাহায্যে সহজেই অন্যের কথা জানতে-বুঝতে বা বলতে পারবেন। যন্ত্রটির নাম কমিনিকেশন মেথড ডিভাইস। দাবি এই যন্ত্রের আবিষ্কারক গোবিন্দ মন্ডলের। অনেক ক্ষেত্রেই মনের ভাব আকারে ইঙ্গিতে বোঝাতে সমস্যা হয়। এবার ভাব বিনিময় অনেক সহজ হলো।

 এক সময়ের  কালনার বাসিন্দা গোবিন্দবাবু বর্তমানে কলকাতায় থাকেন। কালনায় এসে এক মূক-বধির ছাত্রীকে এই যন্ত্র দিলেন তিনি। কী করে যন্ত্রটি ব্যবহার করতে হয় ? তা ওই ছাত্রীকে শিখিয়েও দেন।

একটি অ্যান্ড্রয়েড ফোনের সাথে দুটি অতিরিক্ত এপ্লিকেশন ফিট করেছেন তিনি। একটি হল মাইক্রোফোন এবং আর একটি হল স্পিকার।  একটি নতুন সফটওয়্যার তৈরি করে অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ইনস্টল করা হয়েছে । কোন সাধারণ মানুষ কথা বললেই মাইক্রোফোনের মাধ্যমে মোবাইলে স্ক্রিনে লিখিত আকারে তা  ফুটে উঠছে । মূক  পুরুষ বা মহিলা তখন তা দেখে মোবাইলে লিখত আকারে উত্তর দিচ্ছেন। তা সঙ্গে সঙ্গে ভয়েসে রূপান্তরিত হয়ে স্পিকারের মাধ্যমে শোনা যাচ্ছে ।  যে কোন ভাষাতেই এই যন্ত্রের সাহায্যে কথা বলা যাবে অন্যের সঙ্গে।

 হাতে কলমে শেখানো ছাত্রীর নাম চন্দ্রানী সাহা। বাড়ি কালনার পিয়ারিনগর পাল পাড়ায়। জানুয়ারির ২৯ তারিখে তার বিয়ে হচ্ছে কলকাতা কৈখালীর যুবক সোমনাথ মাঝির সাথে। একটি বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত এই যুবকও মূক-বধির । তাঁকেও উপহার হিসাবে এই যন্ত্র দেবেন বলে গোবিন্দবাবু জানান। তিনি দাবি করেন এই যন্ত্রের মাধ্যমেই মূক-বধিররা সহজেই সাধারণ মানুষের সাথে কথা বলতে পারবেন।গোবিন্দবাবু আরো দাবি করেন সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে এই যন্ত্রের তিনি পেটেন্টও পেয়েছেন।

গোবিন্দবাবু জানালেন, মূক পুরুষ মহিলাকে একটু লেখাপড়া জানতে হবে। তাতে তাঁকে কি বলা হচ্ছে তা পড়ে বুঝতে পারবেন তিনি। পাশাপাশি তিনি তাঁর উত্তর লিখে জানাবেন। সেই লেখাই কথা হয়ে শুনবেন অন্যরা।

Saradindu Ghosh

First published: January 14, 2020, 3:56 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर