ঘুম থেকে উঠেই নিখোঁজ সন্তান ! 

ঘুম থেকে উঠেই নিখোঁজ সন্তান ! 

পাঁচ মাসের পুত্র সন্তান মিলল বাড়ির পাশের খালে।

  • Share this:

#হাওড়া: পাঁচ মাস আগে সঞ্জয় ও দোলনের পুত্র সন্তান হয়। হাজারও আর্থিক প্রতিকূলতার মধ্যে জীবন চলছিল। শুক্রবার রাতে হঠাৎই ছন্দপতন।  সঞ্জয় ও দোলন ঘুম থেকে উঠে দেখে তাদের সাত বছরের মেয়ে বিছানায় থাকলেও নেই ছোট্ট পাঁচ মাসের মুক্ত।

সঞ্জয়ের বাবা অনিল নাতির খোঁজে প্রতিবেশীদের ডাকাডাকি শুরু করে দেন রাত সাড়ে তিনটের সময়। সারারাত খোঁজ চললেও পাননি নাতিকে। আমতার মহিষপাড়ার প্রত্যেকেই তখন খুঁজতে ব্যস্ত। সকালের কুয়াশায় বেশি কিছু না দেখা গেলেও খালে দেখা যায় কিছু একটা পড়ে আছে। যদিও প্রথমে সন্দেহ হয়, বাড়ির মধ্যে ইটের জানালায় পয়সার অভাবে জানালা না বসানো গেলেও ইট ছিল সাজানো। সেই সাজানো ইট সরিয়ে এই কাজ কার তার সন্ধানে শুরু করে পরিবার।

এই সমগ্র ঘটনার খবর যায় আমতা থানায়। ঘটনাস্থলে পুলিশ পুলিশ এসে উদ্ধার করে দেহটি। ঠিক তার কাছেই পড়েছিল একটি ব্যাগ। তার মধ্যে দেখা যায় একটি সচিত্র পরিচয় পত্র এলাকার এক ভাড়াটিয়ার, যিনি পেশায় রাজমিস্ত্রী।  কর্মসূত্রে আমতায় এসেছেন কয়েকদিন আগেই।  তার পরিচয় পত্র ছাড়াও দেখা যায় একটি বোতল। সেই পরিচয়পত্র দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়েন এলাকার বাসিন্দারা,  ভাঙ্গচুর চলে অভিযুক্তের ভাড়া বাড়ি। রাস্তায় মৃতদেহ নিয়ে চলে অবরোধ। দীর্ঘ সময় পরে অবরোধ না ওঠায় এলাকায় আসে বিশাল পুলিশ বাহিনী।  পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করা হয়। ঘণ্টাখানেক পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও এলাকায় মোতায়েন পুলিশ। এদিকে অভিযুক্তকে আটক করে তদন্ত করছে আমতা থানার পুলিশ।

এই ঘটনায় সঞ্জয় মালিকের তরফে অভিযোগ দায়ের হলেও অভিযোগ পত্রে নেই কোন ব্যক্তির নাম। শুক্রবার রাতে ওই এলাকায় চুরি হয়, তার জেরে আটক ব্যক্তির ব্যাগ মেলে বলে দাবি নিয়মিত শেখ নামে এক ব্যক্তির। আদতে এই ঘটনার পিছনে কি রহস্য তা তদন্ত করছে আমতা থানার পুলিশ।

Susovan Bhattacharya

First published: February 1, 2020, 5:29 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर