Cyclone Yaas: ‘যশ’-এর তাণ্ডবের সময় নিরবিচ্ছিন্ন যোগাযোগ রাখতে ভরসা সেই স্যাটেলাইট ফোন

ঘূর্ণিঝড়ের পরে বিচ্ছিন্ন দ্বীপ ও প্রত্যন্ত এলাকায় কন্ট্রোল রুমের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াতে হাতিয়ার স্যাটেলাইট ফোন।

ঘূর্ণিঝড়ের পরে বিচ্ছিন্ন দ্বীপ ও প্রত্যন্ত এলাকায় কন্ট্রোল রুমের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াতে হাতিয়ার স্যাটেলাইট ফোন।

  • Share this:

কলকাতা: ঘূর্ণিঝড় ‘যশ’-এর মোকাবিলায় একাধিক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে রাজ্য সরকার৷ ঘূর্ণিঝড়ের পরে পরিস্থিতি মোকাবিলায় নিরন্তর যোগাযোগ রাখতে এবার স্যাটেলাইট ফোনের ব্যবহারে জোর দিচ্ছে রাজ্য সরকার৷ যদিও যশের পরে নিরবচ্ছিন্ন যোগাযোগ রাখতে এই স্যাটেলাইট ফোনগুলির ব্যবহার বেশি হবে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায়।

গত বছর আমফানের পরে সুন্দরবন তথা উপকূলবর্তী এলাকায় টেলি যোগাযোগ ব্যবস্থা পুরোপুরি ভেঙে পড়ে। ঘূর্ণিঝড়ের পরে বিচ্ছিন্ন দ্বীপ ও প্রত্যন্ত এলাকায় কন্ট্রোল রুমের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াতে তাই হাতিয়ার স্যাটেলাইট ফোন। ইতিমধ্যেই রাজ্য প্রশাসনের তরফে যোগাযোগ করা হয়েছে সমস্ত টেলিফোন অপারেটরদের সঙ্গে।

সংশ্লিষ্ট টেলিকম সংস্থাগুলির সঙ্গে বৈঠক করেছেন কলকাতা, দুই মেদিনীপুর, দুই ২৪ পরগণা ও হাওড়া, হুগলি জেলার প্রশাসনিক আধিকারিকরা। সেখানে টেলিকম সংস্থাগুলির কখন, কী প্রয়োজন তা জানাতে বলা হয়েছে ৷ আজ, সোমবার থেকেই সরকারি ও বেসরকারি টেলিকম সংস্থাগুলি প্রয়োজনীয় সামগ্রী নিয়ে পৌছে যাবে সুন্দরবন ও উপকূলীয় দ্বীপগুলিতে। তারা ক্রমাগত যোগাযোগ রাখবেন ব্লক উন্নয়ন আধিকারিকদের সঙ্গে। প্রত্যেক জায়গায় থাকবেন টেলিকম সংস্থার প্রযুক্তিবিদরা। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হতে শুরু করলে তারা কাজ শুরু করে দেবেন।

সূত্রের খবর সাগর দ্বীপ, ঘোড়ামারা দ্বীপ, মৌসুনী দ্বীপ, পাথরপ্রতিমার জি ও এল প্লট সব জায়গায় স্যাটেলাইট ফোন পাঠানো হচ্ছে। আজকেই টেলিকম সংস্থার প্রতিনিধিরা পৌছে যাবেন এই সব জায়গায়। সব মিলিয়ে দক্ষিণ ২৪ পরগণায় থাকবে ১৫টি প্রতিনিধি দল। উত্তর ২৪ পরগনার হিঙ্গলগঞ্জ, সন্দেশখালি-সহ বিভিন্ন এলাকাতেও থাকছে স্যাটেলাইট ফোন। এখানেও থাকবে টেলিকম সংস্থার প্রতিনিধিরা। পূর্ব মেদিনীপুরেও বেশ কিছু জায়গায় থাকছে স্যাটেলাইট ফোন। সব জেলায় যে সব দূর্গত এলাকা আছে সেখানের দায়িত্বে থাকা আধিকারিক ও কুইক রেসপন্স টিমের কাছে থাকছে এই স্যাটেলাইট ফোন।

এ ছাড়া পুলিশ অফিসারদের কাছে থাকা আর টি সেট দিয়েও যোগাযোগ রাখা হবে সব জেলার কন্ট্রোল রুমে। দক্ষিণ ২৪ পরগণার জেলাশাসক পি উল্গানাথন জানিয়েছেন, "আমরা আগে থেকেই সব ব্যবস্থা নিচ্ছি। যার মধ্যে অন্যতম টেলি যোগাযোগ ব্যবস্থা। সমস্ত টেলি যোগাযোগ ব্যবস্থা যথাযথ রাখতে আমরা বৈঠক করে ফেলেছি।"

আবীর ঘোষাল

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: