Home /News /south-bengal /
আমফানে প্রায় আড়াইশো কোটি টাকার ফসলের ক্ষতি হয়েছে শুধু পূর্ব বর্ধমানেই!

আমফানে প্রায় আড়াইশো কোটি টাকার ফসলের ক্ষতি হয়েছে শুধু পূর্ব বর্ধমানেই!

এক সরকারি আধিকারিক জানাচ্ছেন, বোরো ধানের ৫০ শতাংশই এখনও জমি থেকে কাটা হয়নি৷ তার সবটাই দু'- তিন দিন ধরে জলের তলায় ডুবে রয়েছে৷ ফলে সেই ফসল সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে যাবে৷

এক সরকারি আধিকারিক জানাচ্ছেন, বোরো ধানের ৫০ শতাংশই এখনও জমি থেকে কাটা হয়নি৷ তার সবটাই দু'- তিন দিন ধরে জলের তলায় ডুবে রয়েছে৷ ফলে সেই ফসল সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে যাবে৷

জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, প্রাথমিকভাবে যে রিপোর্ট মিলেছে তাতেই আড়াইশো কোটি টাকার ফসলের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতির আর্থিক পরিমাণ আরও অনেকটাই বাড়বে বলে আশঙ্কা করছে জেলা প্রশাসন।

  • Share this:

#পূর্ব বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলায় আমফানে কৃষিতে ক্ষেত্রে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বোরো চাষে। পুরোপুরি নষ্ট হয়েছে তিল চাষ। সবজি চাষেও খুবই ক্ষতি হয়েছে। অনেক জমিতেই এখন জল দাঁড়িয়ে রয়েছে। জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, প্রাথমিকভাবে যে রিপোর্ট মিলেছে তাতেই আড়াইশো কোটি টাকার ফসলের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতির আর্থিক পরিমাণ আরও অনেকটাই বাড়বে বলে আশঙ্কা করছে জেলা প্রশাসন।

পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানিয়েছেন, অনেক জমিতে বোরো চাষ দেরি করে শুরু হয়েছিল। সেই সব জমির ধান কাটা যায়নি। সেইসব ধানের বেশিরভাগটাই ক্ষতি হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এছাড়া ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে তিল ও সবজি চাষে। এখনও পর্যন্ত যা হিসেব মিলেছে তাতে আড়াইশো কোটি টাকার ফসলের ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। পূর্ব বর্ধমান জেলায় পনেরটি ব্লক সবচেয়ে বেশি ক্ষতির মুখে পড়েছে।  সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে রায়না এক ও দু নম্বর ব্লক, আউশগ্রাম এক ও দুই নম্বর ব্লক, জামালপুর, মেমারি এক ও দু'নম্বর ব্লক, গলসি এক ও দু নম্বর ব্লক, বর্ধমান এক ও দু নম্বর ব্লকে। এ ছাড়াও কালনা মহকুমায় কৃষিতে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতির প্রভাব পড়েছে কাটোয়া মহকুমা জুড়েও।

আরও পড়ুন আমফানের ক্ষয়ক্ষতি জানতে রাজ্যে দল পাঠাচ্ছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক

জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানান, পূর্ব বর্ধমান জেলায় ৪ লাখ ২১ হাজার হেক্টর জমিতে ধান চাষ হয়। তার মধ্যে এক লাখ ৬৪ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো চাষ হয়েছিল। ২৪ শতাংশেরও বেশি জমির বোরো ধান এখনও কাটা হয়নি। ওই জমিতে দেরিতে ধান রোপন করা হয়েছিল। এই ধানের বেশিরভাগটাই ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এছাড়াও ১০-১২ হাজার হেক্টর জমিতে তিল চাষ হয়েছিল। সেই তিল চাষও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতি হয়েছে সবজি চাষেরও। অনেক জমিতেই হাঁটু সমান জল দাঁড়িয়ে রয়েছে। অনেক জমির তিল গাছ জলের তলায়। অনেক জমির ধান গাছ মাটিতে শুয়ে পড়েছে। সেই সব ফসল আদায় করা যাবে না।

Published by:Pooja Basu
First published:

Tags: Amphan, Cyclone Amphan

পরবর্তী খবর