হোম /খবর /দক্ষিণবঙ্গ /
অ্যাপ ডাউনলোড করার আগে সাবধান, ফাঁকা হয়ে যেতে পারে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট

অ্যাপ ডাউনলোড করার আগে সাবধান, ফাঁকা হয়ে যেতে পারে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট

কাজের সুবিধার কথা ভেবে অ্যাপ ডাউনলোড করছেন? তাতেই আপনার সর্বনাশ হতে পারে। মোবাইলের সব তথ্য চলে যেতে পারে সাইবার অপরাধীদের হাতে। ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ফাঁকা হতেও বেশি সময় লাগবে না। তাই অ্যাপ ডাউনলোড করার আগে দশবার ভাবুন

  • Share this:

বর্ধমান: কাজের সুবিধার কথা ভেবে অ্যাপ ডাউনলোড করছেন? তাতেই আপনার সর্বনাশ হতে পারে। মোবাইলের সব তথ্য চলে যেতে পারে সাইবার অপরাধীদের হাতে। ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ফাঁকা হতেও বেশি সময় লাগবে না। তাই অ্যাপ ডাউনলোড করার আগে দশবার ভাবুন। এমনই পরামর্শ দিচ্ছে পুলিশ। তারা এ ব্যাপারে সামাজিক মাধ্যমে বাসিন্দাদের সচেতন করছে। এ ব্যাপারে প্রচারও শুরু হয়েছে।

এমনিতেই ভুয়ো পরিচয় দিয়ে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট সংক্রান্ত সব তথ্য ওটিপি জেনে নিয়ে অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলে নেওয়ার ঘটনা আখছাড় ঘটছে। তবে বাসিন্দাদের অনেকেই এখন এ'ব্যাপারে সচেতন হয়েছেন। ফলে অনেকেই আর ফোনে ওটিপি বলছেন না। তাই এখন অন্য কৌশল নিয়েছে প্রতারকরা।

সাইবার ক্রাইম বিশেষজ্ঞরা বলছেন,অজানা কিছু অ্যাপ সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। সেইসব অ্যাপ ডাউনলোড করলে রিমোট অ্যাক্সেসের মাধ্যমে সাইবার অপরাধীরা সব কিছুই হাতিয়ে নিতে পারে। 'টিম ভিউয়ার', 'সাপোর্ট' 'এনি ডেস্ক'-এর মতো অ্যাপ সাইবার অপরাধীরা সোশ্যাল মিডিয়ার ছড়িয়ে রেখেছে। কারও মোবাইলে কোনও সমস্যা হলে তারা সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়ে অপরাধ করছে। প্রভাবিত করতে তারা ওই ধরনের অ্যাপ ডাউনলোড করার পরামর্শ দিচ্ছে। কিন্তু তাদের মাধ্যমে প্রভাবিত হয়ে গেলে ব্যক্তিগত সমস্ত তথ্য সাইবার অপরাধীদের হাতে চলে যাওয়ার সমূহ সম্ভাবনা। এই ধরনের বিপজ্জনক অ্যাপগুলি সবার মোবাইলে ঘোরাফেরা করছে। অতি উৎসাহে তা অনেকেই ডাউনলোড করে বিপদ ডেকে আনছে।

সাইবার ক্রাইম বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সাইবার অপরাধীরা কয়েক'শ কিলোমিটার দূর থেকে মোবাইল হ্যাক করতে পারে। মোবাইলের পাশাপাশি ল্যাপটপ বা কম্পিউটারও একই ভাবে হ্যাক হতে পারে। নির্দিষ্ট কিছু অ্যাপের মাধ্যমে দূর থেকে মোবাইল বা ল্যাপটপ সারানো যায়। সেক্ষেত্রে খুব ঘনিষ্ঠদের মাধ্যমে এই কাজ করা যায়। সাইবার অপরাধীরা সেই সুযোগটাকেও পুরোদমে কাজে লাগাচ্ছে। তাই অপরিচিত কাউকেই সেই কাজ করতে দেওয়া মানে বিপদ ডেকে আনা- এটা সকলের বোঝা উচিত।

Published by:Rukmini Mazumder
First published:

Tags: Bardhaman