Home /News /south-bengal /
দু' মাস পরই ছিল বিয়ে, অনন্তনাগে জঙ্গি হামলায় শহিদ বাঙালি জওয়ান

দু' মাস পরই ছিল বিয়ে, অনন্তনাগে জঙ্গি হামলায় শহিদ বাঙালি জওয়ান

শহিদ সিআরপিএফ জওয়ান শ্যামল কুমার দে৷

শহিদ সিআরপিএফ জওয়ান শ্যামল কুমার দে৷

সংবাদসংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন অনন্তনাগের বিজবেহারাতে সিআরপিএফ-এর একটি টহলদারি দলের উপরে হামলা চালায় জঙ্গিদের একটি দল৷

  • Share this:

    #সবং: জম্মু কাশ্মীরের অনন্তনাগে জঙ্গি হামলায় প্রাণ হারালেন সিআরপিএফে কর্মরত এক বাঙালি জওয়ান৷ শহিদ জওয়ানের নাম শ্যামল কুমার দে (২৭)৷ তিনি পশ্চিম মেদিনীপুরের সবং-এর সিংপুর গ্রামের বাসিন্দা৷ পরিবারের একমাত্র ছেলের মৃত্যুর খবরে পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া৷ শোকে বিহ্বল গোটা সিংপুর গ্রাম৷

    সংবাদসংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন অনন্তনাগের বিজবেহারাতে সিআরপিএফ-এর একটি টহলদারি দলের উপরে হামলা চালায় জঙ্গিদের একটি দল৷ জঙ্গি হামলায় গুরুতর আহত হয় ২৭ বছর বয়সি শ্যামল এবং স্থানীয় একটি বালক৷ পরে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাঁদের দু' জনেরই মৃত্যু হয়৷

    শহিদ জওয়ানের পরিবার সূত্রে খবর, মাস দু' য়েক পরেই শ্যামলের বিয়ে ছিল৷ তিনিই ছিলেন বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান৷ বিয়ে উপলক্ষে নতুন বাড়ি তৈরির কাজ চলছিল৷ নির্মাণ সামগ্রী কেনার বিষয়ে কথা বলার জন্য এ দিন বেলা বারোটা নাগাদ শ্যামলকে ফোন করেন তাঁর বাবা৷ কিন্তু বার দু' য়েক চেষ্টা করেও ছেলেকে ফোনে পাননি তিনি৷ এর কিছুক্ষণের মধ্যেই সিআরপিএফ-এর তরফে ফোন করে নিহত জওয়ানের বাবাকে তাঁর ছেলের মৃত্যু সংবাদ দেওয়া হয়৷

    জওয়ানের মৃত্যুর খবর পেয়ে এ দিন তাঁর বাড়িতে যান তৃণমূল সাংসদ মানস ভুঁইয়া এবং সবং-এর বিধায়ক গীতা ভুঁইয়া৷ পাশাপাশি জেলা পুলিশ প্রশাসনের কর্তারাও নিহত জওয়ানের বাড়িতে যান৷ সম্ভবত শনিবারই শহিদ জওয়ানের দেহ তাঁর বাড়িতে নিয়ে আসা হবে৷ মানসবাবু জানান, শহিদ জওয়ানের জন্য গোটা সবংবাসী গর্বিত৷ সরকার এবং দলের তরফে নিহত জওয়ানের পরিবারের পাশে থাকা হবে বলে জানিয়েছেন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ৷

    SHANKAR RAI

     
    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    Tags: CRPF, Terrorist Attack

    পরবর্তী খবর