দক্ষিণবঙ্গ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

দু' মাস পরই ছিল বিয়ে, অনন্তনাগে জঙ্গি হামলায় শহিদ বাঙালি জওয়ান

দু' মাস পরই ছিল বিয়ে, অনন্তনাগে জঙ্গি হামলায় শহিদ বাঙালি জওয়ান
শহিদ সিআরপিএফ জওয়ান শ্যামল কুমার দে৷

সংবাদসংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন অনন্তনাগের বিজবেহারাতে সিআরপিএফ-এর একটি টহলদারি দলের উপরে হামলা চালায় জঙ্গিদের একটি দল৷

  • Share this:

#সবং: জম্মু কাশ্মীরের অনন্তনাগে জঙ্গি হামলায় প্রাণ হারালেন সিআরপিএফে কর্মরত এক বাঙালি জওয়ান৷ শহিদ জওয়ানের নাম শ্যামল কুমার দে (২৭)৷ তিনি পশ্চিম মেদিনীপুরের সবং-এর সিংপুর গ্রামের বাসিন্দা৷ পরিবারের একমাত্র ছেলের মৃত্যুর খবরে পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া৷ শোকে বিহ্বল গোটা সিংপুর গ্রাম৷

সংবাদসংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন অনন্তনাগের বিজবেহারাতে সিআরপিএফ-এর একটি টহলদারি দলের উপরে হামলা চালায় জঙ্গিদের একটি দল৷ জঙ্গি হামলায় গুরুতর আহত হয় ২৭ বছর বয়সি শ্যামল এবং স্থানীয় একটি বালক৷ পরে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাঁদের দু' জনেরই মৃত্যু হয়৷

শহিদ জওয়ানের পরিবার সূত্রে খবর, মাস দু' য়েক পরেই শ্যামলের বিয়ে ছিল৷ তিনিই ছিলেন বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান৷ বিয়ে উপলক্ষে নতুন বাড়ি তৈরির কাজ চলছিল৷ নির্মাণ সামগ্রী কেনার বিষয়ে কথা বলার জন্য এ দিন বেলা বারোটা নাগাদ শ্যামলকে ফোন করেন তাঁর বাবা৷ কিন্তু বার দু' য়েক চেষ্টা করেও ছেলেকে ফোনে পাননি তিনি৷ এর কিছুক্ষণের মধ্যেই সিআরপিএফ-এর তরফে ফোন করে নিহত জওয়ানের বাবাকে তাঁর ছেলের মৃত্যু সংবাদ দেওয়া হয়৷

জওয়ানের মৃত্যুর খবর পেয়ে এ দিন তাঁর বাড়িতে যান তৃণমূল সাংসদ মানস ভুঁইয়া এবং সবং-এর বিধায়ক গীতা ভুঁইয়া৷ পাশাপাশি জেলা পুলিশ প্রশাসনের কর্তারাও নিহত জওয়ানের বাড়িতে যান৷ সম্ভবত শনিবারই শহিদ জওয়ানের দেহ তাঁর বাড়িতে নিয়ে আসা হবে৷ মানসবাবু জানান, শহিদ জওয়ানের জন্য গোটা সবংবাসী গর্বিত৷ সরকার এবং দলের তরফে নিহত জওয়ানের পরিবারের পাশে থাকা হবে বলে জানিয়েছেন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ৷

SHANKAR RAI

 
Published by: Debamoy Ghosh
First published: June 26, 2020, 9:43 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर