হোম /খবর /দক্ষিণবঙ্গ /
লাল দুর্গ বর্ধমানেও ভাইরাল বামেদের নির্বাচনী 'টুম্পা সোনা' প্যারোডি, শেয়ারের ধুম নেতা-কর্মীদের

লাল দুর্গ বর্ধমানেও ভাইরাল বামেদের নির্বাচনী 'টুম্পা সোনা' প্যারোডি, শেয়ারের ধুম নেতা-কর্মীদের

লাল দুর্গ বর্ধমানেও ভাইরাল বামেদের নির্বাচনী 'টুম্পা সোনা' প্যারোডি। ফাইল ছবি।

লাল দুর্গ বর্ধমানেও ভাইরাল বামেদের নির্বাচনী 'টুম্পা সোনা' প্যারোডি। ফাইল ছবি।

টুম্পা সোনা গানের প্যারোডিতে মজেছে এক সময়ের বামফ্রন্টের লাল দুর্গ বর্ধমানও। বাম নেতা-কর্মী-সমর্থকদের মোবাইল ফোনে বেজে চলেছে টুম্পা সোনার সুর।

  • Last Updated :
  • Share this:

#বর্ধমান: টুম্পা সোনা গানের প্যারোডিতে মজেছে এক সময়ের বামফ্রন্টের লাল দুর্গ বর্ধমানও। বাম নেতা-কর্মী-সমর্থকদের মোবাইল ফোনে বেজে চলেছে টুম্পা সোনার সুর। ইতিমধ্যেই তা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন বামফ্রন্টের পূর্ব বর্ধমান জেলার আহ্বায়ক প্রবীণ সিপিএম নেতা অমল হালদারও। শুধু বাম কর্মী সমর্থকরা নয় টুম্পা সোনা প্যারোডি শুনছেন দলমত নির্বিশেষে সকলেই।

এবারের বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে বিশেষ ভূমিকা নিচ্ছে গান। খেলা হবে স্লোগানে মেতেছে রাজ্যের আমজনতা। যুব তৃনমূলের হাত ধরে আশা খেলা হবে তৃণমূলের মিছিল ছাড়িয়া এখন ঢুকে পড়েছে বিজেপির পরিবর্তন যাত্রা লাল ঝাণ্ডার মিছিলেও। 'খেলা হবে' বেজেছে সরস্বতী পুজোর মণ্ডপে, বিয়ের অনুষ্ঠানেও। ঠিক সেই সময় এবার ভোট রঙ্গে ভাইরাল টুম্পা সোনা।

২৮ ফ্রেব্রুয়ারি ব্রিগেড সমাবেশকে সামনে রেখে টুম্পা সোনা গানের প্যারোডি ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেই গান সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন সিপিএমের রাজ্য কমিটির সদস্য অমল হালদারও। সিপিএমের পূর্ব বর্ধমান জেলা কমিটির সদস্য দীপঙ্কর দের দাবি, সোশাল মিডিয়াতে তারা এই ভিডিও দেখেছেন। তবে তার  উৎস কী তা তাঁদের জানা নেই। তবে সোশাল মিডিয়াতে দেখা যাচ্ছে। মানুষ কমেন্ট, লাইক ও শেয়ার করছে। তবে এই গানের কথার সাথে তৃনমূল ও বিজেপির বাস্তব চরিত্রের একটা মিল আছে। তৃণমূল ও বিজেপিকে হারানোর জন্য মানুষ ২৮ফেব্রুয়ারি বিগ্রেড যাবে তারই প্রতিচ্ছবি সোশাল মিডিয়াতে দেখা যাচ্ছে। তৃণমূল ও বিজেপির বিরুদ্ধে মানুষ বিগ্রেড ভরাতে চাইছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তা ধরা পড়ছে।

তৃণমূলের জেলা মুখপাত্র প্রসেনজিৎ দাসের বক্তব্য, একটা সময় বামেরা গনসঙ্গীতকে সামনে রেখে দলের মিটিং মিছিলে করত। আজ তাদের বিগ্রেড ভরানোর জন্য এই গানের সাহায্য নিতে হচ্ছে দেখে খারাপ লাগছে। অন্যদিকে বিজেপির জেলা নেতা শুভম নিয়োগীর বক্তব্য, ৩৪ বছরে সিপিএম দেশীয় সংস্কৃতি ভুলিয়ে মানুষকে অপসংস্কৃতি শিখিয়েছে। দলটার পাশে আজ আর মানুষ নেই। তাই এই ধরনের প্যারোডি গানে মানুষের মন ভোলানো যাবে না। মানুষ যে আমাদের সঙ্গে আছে তার প্রমান দেবে বিজেপির বিগ্রেড।

Saradindu Ghosh

Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: Cpim, East Bardhaman, Election Campaign