corona virus btn
corona virus btn
Loading

জেলার সদর শহর বর্ধমানেই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি

জেলার সদর শহর বর্ধমানেই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি

পূর্ব বর্ধমান জেলায় এখনও পর্যন্ত দুশো দশজন জন করোনা আক্রান্তের হদিস মিলেছে।

  • Share this:

#বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে সবচেয়ে এগিয়ে জেলার সদর শহর বর্ধমান। এই শহরে এদিন পর্যন্ত ২০ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে কেতুগ্রাম এক নম্বর ব্লক। সেখানে আক্রান্ত হয়েছেন পনের জন। এই জেলায় এদিন পর্যন্ত দুশো দশজন জন করোনা আক্রান্তের হদিস মিলেছে। তার মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন একশো সাতাশি জন। বাইশ জন করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে এক জনের।

পূর্ব বর্ধমান জেলায় প্রথম করোনা আক্রান্তের হদিশ মেলে খণ্ডঘোষ ব্লকে। এরপর বর্ধমানের সুভাষপল্লী এলাকায় এক মহিলা করোনা আক্রান্ত হন। বর্ধমান শহরে এখনও পর্যন্ত কুড়ি জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। কাটোয়া শহরে আক্রান্ত হয়েছেন আট জন। কালনা শহরে দুজন আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। মেমারি শহরে আক্রান্ত হয়েছেন তিনজন। অন্যদিকে গুসকরা পৌরসভা এলাকায় একজন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। অর্থাৎ আক্রান্ত দুশো দশ জনের মধ্যে শহর এলাকায় আক্রান্ত হয়েছেন চৌত্রিশ জন। বাকি একশো ছিয়াত্তর জন আক্রান্ত গ্রামীণ এলাকার বাসিন্দা।

জেলা প্রশাসন ও জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, বাইরের রাজ্য থেকে আশা বাসিন্দাদের মধ্যে বেশিরভাগই গ্রামীণ এলাকার বাসিন্দা। বাইরের রাজ্য থেকে তারা আক্রান্ত হয়ে আসায় গ্রামীণ এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে। পরিযায়ী শ্রমিকদের আশা বন্ধ হবার পর আক্রান্তের হার কমেছে।জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে পাওয়া তথ্যে দেখা যাচ্ছে, কেতুগ্রাম এক নম্বর ব্লকে আক্রান্ত হয়েছেন পনেরো জন। কালনা এক নম্বর ব্লকে আক্রান্ত হয়েছেন তের জন, কালনা দু নম্বর ব্লক ও মেমারি দু নম্বর ব্লকে তের জন করে আক্রান্ত হয়েছেন।

মঙ্গলকোট ব্লকে আক্রান্ত হয়েছেন বারো জন। মেমারি এক নম্বর ব্লকেও বারো আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া আউশগ্রাম এক নম্বর ব্লকে ছ জন, আউশগ্রাম দু নম্বর ব্লকে সাতজন, ভাতার ব্লকে আট জন, বর্ধমান এক নম্বর ব্লকে ছয় জন, বর্ধমান দু নম্বর ব্লকে চারজন, গলসি এক ব্লকে আট জন, গলসি দুই ব্লকে একজন, জামালপুর ব্লকে চার জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া কাটোয়া এক ব্লকে ছয় জন, কাটোয়া দু নম্বর ব্লকে সাত জন, কেতুগ্রাম দু নম্বর ব্লকে আট জন, খণ্ডঘোষ ব্লকে সাত জন, মন্তেশ্বর ব্লকে চারজন, পূর্বস্থলী এক নম্বর ব্লকে পাঁচ জন, পূর্বস্থলী দু'নম্বর ব্লকে ছয়জন, রায়না এক নম্বর ব্লকে তিনজন, রায়না দু'নম্বর ব্লকে আটজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

Saradindu Ghosh

Published by: Ananya Chakraborty
First published: July 12, 2020, 3:21 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर