corona virus btn
corona virus btn
Loading

ফেস কভার ব্যবহারের বালাই নেই, ভিড় করে রবিবারের বাজারে বাসিন্দারা

ফেস কভার ব্যবহারের বালাই নেই, ভিড় করে রবিবারের বাজারে বাসিন্দারা

করোনা ঠেকাতে বারবার সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। মুখ্যমন্ত্রীও সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। কিন্তু, কেন এত উদাসীনতা?

  • Share this:

#বর্ধমান: করোনা ঠেকাতে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পরামর্শ, বাইরে বেরোলে ফেস কভার ব্যবহার করতে হবে। তবে মুখ ঢাকছেন ক’জন? বর্ধমানের বিভিন্ন বাজারে সামাজিক দূরত্ব মানা তো দূরের কথা, ফেস কভার ব্যবহার করেননি কেউই। গাঁ ঘেঁষাঘেঁষি করে থলে ভরতি বাজার করতেই ব্যস্ত সবাই। সচেতনতার লেশমাত্র নেই।

রোববার মানেই জম্পেশ খাওয়াদাওয়া। একেবারে কবজি ডুবিয়ে। লকডাউন তো কী, রসনা কি আর বশ মানে? বর্ধমান শহরের বাজারে উপচে পড়া ভিড়। সামাজিক দূরত্ব মানার বালাই তো নেই। সঙ্গে নেই ফেস কভারও। করোনা ঠেকাতে সাবান বা স্যানিটাইজার ব্যবহারের সঙ্গেই স্বাস্থ্য মন্ত্রক ফেস কভার ব্যবহারেরও পরামর্শ দিয়েছে। তবে, এসব নিয়ে মাথাব্যথা নেই কারও। বর্ধমানের বাজারে গিয়ে দেখা গেল, সচেতন নন কেউই।

কেউ বলছেন,মাস্ক আছে তো। তবে তা আছে গাড়ির ডিকিতে। কেউ বলছেন, বাড়িতে রয়েছে, ফিরে গিয়ে পরে নেব। কেউ আবার তা গলায় ঝুলিয়ে গা ঘেঁষাঘেঁষি করে নিশ্চিন্তে বাজার করছেন। কেউ বলছেন, মাস্ক পরি। তবে ঠান্ডা লাগলে বা সর্দি হলে। এই দাদার সচেতনতার জবাব নেই। তবে এই সময় তিনি মাস্ক লাগানোর কথা ভুলে বসেছেন। কেউ আবার পুরোপুরি স্যারেন্ডার করে বলছেন, স্যরি, ভুল হয়ে গিয়েছে।

এতদিন করোনা ঠেকাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও বারে বারে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা সাবান দিয়ে ভালোভাবে হাত ধোওয়ার কথা বলে আসছিলেন চিকিৎসকরা। মুখ্যমন্ত্রী অবশ্য বরাবরই মুখ ঢেকে চলার পরামর্শ দিচ্ছিলেন। তিনি গেঞ্জি কাপড়ের মাস্ক ব্যবহার করছেন। এবার ফেস কভার ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকও। বাজারে এন নাইনটি ফাইভ মাস্ক না মিললে সুতীর কাপড় নুনজলে ফুটিয়ে ঘরেই ফেস কভার তৈরি করে নিতে বলছে তারা। কারণ, হাওয়াতেও নাকি ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস।

কিন্তু কোনও রকম সচেতনতারই ধার ধারছেন না বর্ধমানের বাসিন্দাদের অনেকেই। লক ডাউনের মাঝে ঘর থেকে মোটর সাইকেল নিয়ে হাওয়া খেতে বেরিয়ে পড়া তো রয়েছেই, বাজারেও কোনও রকম সাবধানতা ছাড়াই ঘুরছেন নিশ্চিন্তে। ঘরে বৃদ্ধ বাবা মা আছেন। বলছেন সেকথাও। প্রধানমন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রী কখনও জোড়হাতে কখনও পায়ে ধরে ঘরে থাকতে বলছেন। তবুও কে শোনে কার কথা। বাজার করতে বেরিয়ে হয়তো নিজের অজান্তেই করোনা ভাইরাসকে সঙ্গে নিয়ে ঘরে ঢুকছেন সে কথা কবে বুঝবেন এই বাসিন্দারা! হয়তো বুঝবেন তখন যখন আর করার কিছু থাকবে না।

Saradindu Ghosh

Published by: Ananya Chakraborty
First published: April 5, 2020, 5:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर