• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • পরিবারের সদস্যরা সম্পর্ক মেনে না নেওয়ায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী যুগল !

পরিবারের সদস্যরা সম্পর্ক মেনে না নেওয়ায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী যুগল !

ঢাকায় প্রথম ডিভিশন, প্রিমিয়ার লিগে কিছুদিন খেলেছিলেন সজীব৷ কিন্তু সেখানেও চোখে পড়ার মতো পারফরম্যান্স করতে ব্যর্থ হন তিনি৷ শেষ পর্যন্ত রাজশাহিতে নিজের এলাকাতেই ক্রিকেটে মনযোগ দেন তিনি৷ ফলে জাতীয় দলে ফেরার সম্ভাবনাও কমছিল৷ যদিও শুধু ক্রিকেটীয় হতাশা, নাকি অন্য কোনও কারণে আত্মঘাতী হলেন সজীব, তা এখনও স্পষ্ট নয়৷ photo source collected

ঢাকায় প্রথম ডিভিশন, প্রিমিয়ার লিগে কিছুদিন খেলেছিলেন সজীব৷ কিন্তু সেখানেও চোখে পড়ার মতো পারফরম্যান্স করতে ব্যর্থ হন তিনি৷ শেষ পর্যন্ত রাজশাহিতে নিজের এলাকাতেই ক্রিকেটে মনযোগ দেন তিনি৷ ফলে জাতীয় দলে ফেরার সম্ভাবনাও কমছিল৷ যদিও শুধু ক্রিকেটীয় হতাশা, নাকি অন্য কোনও কারণে আত্মঘাতী হলেন সজীব, তা এখনও স্পষ্ট নয়৷ photo source collected

ইসলামপুর থানার পূর্ব মাটিকুন্ডা গ্রামে একটি গাছের মধ্যে দুইজনের ঝুলন্ত মৃতদেহটি দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা।

  • Share this:

#ইসলামপুর:   ভালবাসার সম্পর্ক মেনে না নেওয়ায় এক যুবক যুবতী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করল। ঘটনাটি ঘটেছে ইসলামপুর থানার পূর্ব মাটিকুন্ডা গ্রামে।  মৃত যুবতীর নাম মাইনো সোরেন (২০), বাড়ি ইসলামপুর থানার পানিকুয়া গ্রামে । যুবকের নাম বিষ্ণু সিংহ (২৭) বাড়ি, পূর্ব মাটিকুন্ডা গ্রামে। ঘটনাস্থলে ইসলামপুর থানার পুলিশ। মৃতদেহটি ময়না তদন্তের জন্য ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ইসলামপুর থানার পুলিশ।

স্থানীয়সূত্রে জানা গিয়েছে, ইসলামপুর থানার পূর্ব মাটিকুন্ডা গ্রামের বাসিন্দা বিষ্ণ সিংহের সাথে পানিকুয়া গ্রামের বাসিন্দা মাইনো সোরেনের দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। দুই বাড়ির লোকজন তাদের প্রেমের সম্পর্ক না মানায় দুইজনই স্থানীয় একটি গাছের মধ্যে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।ইসলামপুর থানার পূর্ব মাটিকুন্ডা গ্রামে একটি গাছের মধ্যে দুইজনের ঝুলন্ত মৃতদেহটি দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। এই ঘটনায় এলাকায় ব্যাপার চাঞ্চল্য ছড়ায়। মৃতদেহ দু'টি দেখতে ছুটে আসে আশপাশ থেকে বহু মানুষ। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন ইসলামপুর থানার পুলিশ। মৃতদেহ দু'টি ময়না তদন্তের জন্য ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ইসলামপুর থানার পুলিশ।

UTTAM PAUL 

Published by:Piya Banerjee
First published: