corona virus btn
corona virus btn
Loading

রক্ত দিলেন স্বামী-স্ত্রী..নিমন্ত্রিতরা, এভাবেই প্রথম বিবাহ বার্ষিকী পালন করলেন নবদম্পতি

রক্ত দিলেন স্বামী-স্ত্রী..নিমন্ত্রিতরা, এভাবেই প্রথম বিবাহ বার্ষিকী পালন করলেন নবদম্পতি

রক্তের বন্ধনেই নিজেদের প্রথম বিবাহবার্ষিকীকে স্মরণীয় করে রাখলেন খড়গপুর শহরের মুখার্জি দম্পতি।

  • Share this:

#খড়গপুর: রক্তের বন্ধনেই প্রথম বিবাহ বার্ষিকী উদযাপন খড়গপুরের মুখার্জি দম্পতির, রক্ত দিলেন প্রতিবেশীরাও ৷

রক্তের বন্ধনেই নিজেদের প্রথম বিবাহবার্ষিকীকে স্মরণীয় করে রাখলেন খড়গপুর শহরের মুখার্জি দম্পতি। সোমবার এই অন্যরকম বিবাহ বার্ষিকী উদযাপনকে ঘিরে তাই কৌতূহলের অন্ত ছিল না ৷ শহরের মালঞ্চ এলাকার মুখার্জি ভবনকে ঘিরে। মানুষ যেখানে এই দিনটিতে কোথাও বেড়াতে যাওয়া, শপিং মলে কাটানো, সিনে কমপ্লেক্সে কাটিয়ে থাকেন সেখানে নব দম্পতি, তাঁদের পরিবার ও প্রতিবেশীরা রক্ত দিলেন বিছানায় শুয়ে। সৌম্যেন্দ্রনাথ মুখার্জি জানালেন, 'আমার ইচ্ছা ছিল বৌভাতের দিনই রক্তদান শিবির করব। কিন্তু বিভিন্ন ব্যস্ততা ও অনভিজ্ঞতার কারণে করা হয়ে ওঠেনি। সেদিনই ঠিক করেছিলাম প্রথম বিবাহ বার্ষিকীর দিনেই স্ত্রী-সহ গোটা পরিবার রক্তদান করব। সেটাই আজ করতে পেরে ভাল লাগছে।’

তবে জীবনের অন্যতম সেরা পাওয়াটা সোমবার পেলেন সৌম্যেন্দ্রনাথের স্ত্রী সায়ন্তনী। হাতে সুঁচ ফোঁটাতে প্রচণ্ড ভয় পেতেন তিনি । সোমবার স্বামীর আহ্বানে জীবনের প্রথম রক্তদান করে ভয় কেটে গিয়েছে তাঁর। সায়ন্তনী জানালেন, ‘এটা আমার কাছে জীবনের সেরা পাওয়া। আগে সুঁচ ফোটাবে জানলেই ছিটকে পালাতাম ৷ কিন্তু আজ সেই ভয়কে জয় করেছি আমি। আর ভয় পাব না কোনও দিন।’

সৌম্যেন্দ্রনাথের বাবা খড়গপুর ভলেনটিয়ারি ব্লাড ডোনার্স অর্গানাইজেসনের সদস্য। তাঁরও ইচ্ছা ছিল এমনই একটি অন্যরকম অনুষ্ঠানের। ছেলে আর পুত্রবধূকে নিয়ে বিবাহ বার্ষিকীতে প্রতিবেশীদের আমন্ত্রণ জানানোর পাশাপাশি তাঁদেরও উদ্বুদ্ধ করলেন রক্তদানে। ফলে দিনের শেষে ৩জন মহিলা সহ মোট ১৯জন রক্তদান করলেন এদিন। অন্যরকম এই অনুষ্ঠানকে স্বাগত জানাতে খড়গপুরের মালঞ্চর বেশ কিছু স্থানীয় বাসিন্দারা এদিন সৌমেন্দ্র ও সায়ন্তনীকে আশীর্বাদ জানালেন। সব শেষে কব্জি ডুবিয়ে ভূরিভোজে মধুরেণ সমপায়তে।

First published: January 27, 2020, 9:20 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर