কম দামে রেড মিট পেতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়াচ্ছে করোনা গুজব ! 

কম দামে রেড মিট পেতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়াচ্ছে করোনা গুজব ! 

মুরগির মতো ছাগলের মাংসের দাম কমাতে সোসাল মিডিয়ায় গুজব ছড়ানোর পন্হা নিয়েছেন কেউ কেউ

  • Share this:

#বর্ধমান: রেড মিটেও করোনা ভাইরাস! এমনই গুজব ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের আতঙ্ক এখন সকলের মধ্যেই। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে করোনার উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীনের সংখ্যা যত বাড়ছে ততই সাবধান হচ্ছেন বাসিন্দারা। প্রশাসনও আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকা, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দিচ্ছে। তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রটছে গুজবও। সেই গুজবের নবতম সংযোজন পাঁঠা বা খাসির মাংস থেকে করোনা ছড়ানোর প্রচার। এমনিতেই গুজবের জেরে মুরগির মাংস বিক্রি তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। অনেকেই সেই গুজবে প্রভাবিত হয়ে মুরগির মাংসের দোকানের ধার দিয়ে যাচ্ছেন না। দিন দিন দাম কমছে মুরগির মাংসের। অনেক জায়গায় কাটা মুরগি কেজি প্রতি ৮০-৯০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তাতেও খদ্দের নেই। ফার্মগুলি মুরগিতে ঠাসা। চাহিদা না থাকায় ঝাঁপ বন্ধ হয়ে গিয়েছে অনেক মুরগির মাংসের দোকানের। রগির মাংসের বদলে অনেকেই ভিড় করছেন খাসির মাংসের দোকানে। চাহিদা বাড়ছে দিন দিন। রবিবার-সহ ছুটির দিনগুলিতে দীর্ঘ ক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে তবেই খাসি বা পাঁঠার মাংস হাতে মিলছে। চাহিদা বাড়তেই অনেক জায়গায় সেই মাংসের দামও চড়চড় করে ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে। কোথাও কোথাও কেজি প্রতি খাসির মাংসের দাম ৫৬০ টাকা থেকে বেড়ে ৭০০ টাকা ছুঁয়েছে। তাই মুরগির মতো ছাগলের মাংসের দাম কমাতে সোসাল মিডিয়ায় গুজব ছড়ানোর পন্হা নিয়েছেন কেউ কেউ। দ্রুত ছড়িয়েও পড়ছে সে সব পোস্ট। জলের দরে রেড মিট কিনে তা কবজি ডুবিয়ে ভুরিভোজই তাদের একমাত্র উদ্দেশ্য- এমনটাই মনে করছেন নেটিজেনদের অনেকেই। সে সব পোস্টে এ ব্যাপারে সরস মন্তব্যও করছেন তাঁরা।

পূর্ব বর্ধমান জেলায় গুজবের জেরে মুরগির মাংসের বিক্রি কমার সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাড়ছে খাসির মাংসের চাহিদা। আবার আকাশ ছোঁয়া দামের কারণে নিয়মিত খাসির মাংস কিনতেও পারছেন না অনেকে। সস্তায় খাসির মাংস পেতেই গুজবকে হাতিয়ার করা হচ্ছে বলে মনে করছে প্রশাসন। পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসনের এক পদস্থ আধিকারিক বলেন, গুজব ছড়ানোর প্রমাণ মিললে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আবার কেউ সুযোগ বুঝে বেশি দাম হাঁকলে তিনিও ছাড় পাবেন না।

Saradindu Ghosh

First published: March 9, 2020, 9:18 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर