বারুইপুরে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্কের কালোবাজারি ঠেকাতে তৎপর এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ

বারুইপুরে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্কের কালোবাজারি ঠেকাতে তৎপর এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ

বারুইপুর পুলিশ জেলার ডিস্ট্রিক্ট এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ বারুইপুর থানার পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে বিভিন্ন ওষুধের দোকানে সরকারি নির্দেশিকা পালন করার আবেদন জানালেন।

  • Share this:

#বারুইপুর: চাহিদা বাড়তেই বাজারে অমিল মাস্ক, স্যানিটাইজার। কালোবাজারির অভিযোগ উঠছিল অনেকদিন ধরেই। মাস্ক-স্যানিটাইজারের কালোবাজারি রুখতে এবার ময়দানে ডিস্ট্রিক্ট এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ। করোনা আতঙ্কে কাঁপছে বিশ্ব। রাজ্য সরকার নোভেল করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে নানান ধরনের সতর্কবার্তা প্রচার করছে। সংক্রমণ রুখতে বারবার হাত ধোওয়া, স্যানিটাইজার ব্যবহার, হাঁচি,কাশি হলে মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। আর তাতেই মাস্ক, স্যানিটাইজার কেনার হিড়িক পড়েছে। ইতিমধ্যেই মাস্ক ও স্যানিটাইজারকে অতি আব্যশকীয় পণ্য বলে ঘোষণা করেছে কেন্দ্র। সুযোগ বুঝে ব্যবসায়ীরা দাম বাড়িয়েছেন। কেউ কেউ আবার মজুত করেও রাখছেন। তাই কালোবাজারি রুখতে অভিযান জেলায় জেলায়। কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী, রাজ্য সরকারের ডিস্ট্রিক্ট এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ ওষুধের দোকানগুলিকে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক নিয়ে কালোবাজারি না করতে সতর্ক করতে শুরু করল। বারুইপুর পুলিশ জেলার ডিস্ট্রিক্ট এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ বারুইপুর থানার পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে বিভিন্ন ওষুধের দোকানে সরকারি নির্দেশিকা পালন করার আবেদন জানালেন। পাশাপাশি স্টক মিলিয়ে দেখলেন ও প্রয়োজনীয় হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক দোকান গুলোতে রাখার ও নির্দিষ্ট মূল্যে বিক্রির নির্দেশ ও দিলেন।

যদিও ওষুধের দোকানদার রা জানাচ্ছেন, কয়েক শ গুণ বেড়ে গিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার মাস্কের চাহিদা। তাই অর্ডার দিয়েও তারা মাল পাচ্ছেন না। আর তারা অত্যাবশ্যক পণ্য দুটি ন্যায্য মূল্যেই বিক্রি করছেন। বারুইপুরে ওষুধ দোকানগুলিতে মাক্স ও হ্যান্ড স্যানিটাইজা নেই।

First published: March 18, 2020, 11:18 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर