corona virus btn
corona virus btn
Loading

খুশির খবর হাওড়ায় ! সুস্থ সন্তানের জন্ম দিলেন করোনা আক্রান্ত মা !

খুশির খবর হাওড়ায় ! সুস্থ সন্তানের জন্ম দিলেন করোনা আক্রান্ত মা !
photo source collected

হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সরা সেই চ্যালেঞ্জ কে সফল করে ফেললেন ।

  • Share this:

#হাওড়া: করোনা আতঙ্কের মধ্যেই খুশির খবর, করোনা আক্রান্ত এক অন্তঃসত্ত্বা জন্মদিল এক সুস্থ সন্তানের । তিনদিন আগে হাওড়ার সত্যবালা আই ডি হাসপাতাল থেকে করোনায় আক্রান্ত  হওয়ায় শিবপুরের বাসিন্দা এই অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে ফুলেশ্বরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে পাঠানো হয়। রাজ্য সরকারের তরফে এই হাসপাতালটিকে করোনা হাসপাতাল হিসাবে ঘোষণা করা হয় । এরপর থেকেই হাওড়ার সত্যবালা আই ডি হাসপাতল থেকে covid 19 এ আক্রান্ত রোগীদের এই হাসপাতালে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল | করোনা উপস্বর্গ নিয়ে হাওড়ার আই ডি হাসপাতালে ভর্তি হন এই অন্তঃসত্ত্বা মহিলা, এরপর তার লালা রস পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয় ICMR এ । সেখান থেকেই মহিলার লালা রস পরীক্ষা পজেটিভ রিপোর্ট আসার পরই তাকে স্থানান্তরিত করা হয় । সোমবার রাত থেকেই প্রসব যন্ত্রনা শুরু হয় করোনা আক্রান্ত মহিলার। এরপর মঙ্গলবার সকালে হাসপাতালের চিকিৎসক ও চিকিৎসা কর্মীরা মিলে শুরু করে অস্ত্রপ্রচার, জন্ম হয় এক সুস্থ সন্তানের ।

হাসপাতালের চেয়ারম্যান চিকিৎসক শুভাশিষ মিত্র জানান, আমাদের কাছে এটা একটা বড়  চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছিল করোনার মতো রোগে আক্রান্ত মহিলার সুস্থ সন্তান প্রসব করানো । হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সরা সেই চ্যালেঞ্জ কে সফল করে ফেললেন । এটা করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অনেকটা সাহস যোগাবে আমাদের । রাজ্যে এর আগে সন্তান জন্ম দেওয়ার পর করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে তবে করোনা তে আক্রান্ত রোগীর সন্তান জন্ম দেওয়ার ঘটনা এই প্রথম । এই ক্ষেত্রে অনেকটা ভয়ের বিষয় ছিল, করোনা আক্রান্ত রোগীর অস্ত্রোপচারের সময় চিকিৎসক ও চিকিৎসা কর্মীরাও করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা প্রবল ও জন্মানো সন্তানও সন্তান ও করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা থেকে যাচ্ছে । সদ্যোজাত কে নজরদারিতে রাখা হবে এবং এই মুহূর্তে শিশুটিকে তার মায়ের কাছে দেওয়া হবে না | হাওড়া মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডক্টর ভবানী দাস জানিয়েছেন এটা এই সময় দাঁড়িয়ে খুব খুশির খবর , মা ও শিশু দুজনেই সুস্থ আছে, তবে সদ্যজাতকে নজরে রাখা হবে । আমরা সব রকম ব্যবস্থা নিচ্ছি যাতে মা ও সন্তান কে সুস্থ করে বাড়ি পাঠানো যায় । আর এই কঠিন লড়াইয়ে খুশির এই সময়কে ক্যামেরা বন্দি করে রাখতে ভোলেননি চিকিৎসক ও চিকিৎসা কর্মীরা । মুঠো ফোন সদ্যোজাতকে নিয়ে ছবি তুলে রাখেন সবাই ।

DEBASHISH CHAKRABORTY 

Published by: Piya Banerjee
First published: April 21, 2020, 9:54 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर