corona virus btn
corona virus btn
Loading

আক্রান্ত বেড়ে ৭৪! অধিকাংশই ফিরেছেন মহারাষ্ট্র থেকে! কন্টেইনমেন্ট জোন বাড়ছে পূর্ব বর্ধমানে

আক্রান্ত বেড়ে ৭৪! অধিকাংশই ফিরেছেন মহারাষ্ট্র থেকে! কন্টেইনমেন্ট জোন বাড়ছে পূর্ব বর্ধমানে

জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত জেলার ৭৪ জন বাসিন্দা করোনা আক্রান্ত। তাঁদের মধ্যে ৪৪ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ৩০ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

  • Share this:

Saradindu Ghosh

#পূর্ব বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ৭৪! নতুন করে আরও পাঁচজন করোনায়  আক্রান্ত হয়েছেন।আক্রান্তদের বেশিরভাগই মহারাষ্ট্র থেকে জেলায় ফিরেছেন। লাফিয়ে লাফিয়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় উদ্বিগ্ন জেলার বাসিন্দারা। বাইরের রাজ্য থেকে প্রতিদিনই হাজারে হাজারে বাসিন্দা জেলায় ফিরছেন। তাই আক্রান্তের সংখ্যা আরও অনেকটাই বাড়বে বলে আশঙ্কা করছে জেলা প্রশাসন। জেলা স্বাস্থ্য দফতর জানিয়েছে, বাইরে থেকে আসা বাসিন্দাদের করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহের কাজ চলছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, নতুন যাঁরা আক্রান্ত হয়েছেন তাঁদের মধ্যে ভাতারের বাসিন্দা দু’জন। বর্ধমান দুই নম্বর ব্লকের একজন, কেতুগ্রাম এক নম্বর ব্লকের একজন ও বর্ধমান পৌরসভা এলাকার একজন বাসিন্দা রয়েছেন। জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত জেলার ৭৪ জন বাসিন্দা করোনা আক্রান্ত। তাঁদের মধ্যে ৪৪ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ৩০ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বিভিন্ন কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রয়েছেন ১ হাজার ৬২৪ জন বাসিন্দা। হোম কোয়ারান্টিনে রয়েছেন ২৩ হাজার ৩০৮ জন বাসিন্দা। ব্যাপকভাবে করোনা আক্রান্ত পাঁচ রাজ্য অর্থাৎ মহারাষ্ট্র, গুজরাট, দিল্লি, মধ্যপ্রদেশ ও তামিলনাড়ু থেকে এসে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রয়েছেন এমন বাসিন্দা সংখ্যা ১ হাজার ৪৯৯ জন। এখনও পর্যন্ত জেলায় ১৩ হাজার ৬৯৮ জন বাসিন্দার করোনা পরীক্ষার জন্য লালারসের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

৮ হাজার ২১২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যেই ৭৪ জনের নমুনা করোনা পজিটিভ বলে রিপোর্ট এসেছে। এঁদের মধ্যে ৬০ জন পূর্ব বর্ধমান জেলায় রয়েছেন। বাকিরা রাজ্যের অন্য প্রান্তে রয়েছেন। এদিন পর্যন্ত জেলায় ৫৩ টি এলাকাকে কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, ব্যাপকভাবে করোনা আক্রান্ত পাঁচ রাজ্য থেকে যাঁরা আসছেন তাঁদের প্রত্যেককেই কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখা নিশ্চিত করা হচ্ছে। পাঁচ দিন পর তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হবে। যেসব নমুনা ইতিমধ্যেই সংগ্রহ করা  হয়েছে তা দ্রুততার সঙ্গে পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। বর্ধমান মেডিকেল কলেজে পরীক্ষার পরিকাঠামো বাড়ানোর চেষ্টা চলছে। দুর্গাপুরের সনকা হাসপাতালে ওপর চাপ কমাতে বর্ধমান আলাদা করোনা হাসপাতাল তৈরির পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। বর্ধমানে দু’নম্বর জাতীয় সড়কের পাশে বামচাঁদাইপুরের প্রি কোভিড  হাসপাতালকে করোনা হাসপাতাল হিসেবে ব্যবহারের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

Published by: Simli Raha
First published: May 30, 2020, 3:04 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर