• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে একদিন অন্তর খুলবে পূর্বস্থলীর রেল বাজারের দোকানপাট

করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে একদিন অন্তর খুলবে পূর্বস্থলীর রেল বাজারের দোকানপাট

মাছের আড়তগুলি সকালে দু ঘন্টার জন্য খোলা থাকবে।

মাছের আড়তগুলি সকালে দু ঘন্টার জন্য খোলা থাকবে।

মাছের আড়তগুলি সকালে দু ঘন্টার জন্য খোলা থাকবে।

  • Share this:

#বর্ধমান: একদিন অন্তর খুলবে পূর্বস্থলীর রেল বাজারের দোকানপাট। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে এই পদক্ষেপ নিয়েছে রেল বাজার কমিটি। বাজারে প্রতিদিন জেলার বিভিন্ন প্রান্ত ও অন্য জেলা থেকে আসা বাসিন্দারা ভিড় করছেন। বার বার আবেদন করা সত্ত্বেও বাজারে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা যাচ্ছে না। তাই সাবধানতার জন্যই এই সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এই সিদ্ধান্তের কথা এলাকার মাইকেও প্রচার করেছে তারা। সেই প্রচারে বলা হয়েছে, লক ডাউন না ওঠা পর্যন্ত একদিন করে দোকানপাট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত কার্যকর থাকবে। তবে মাছের আড়তগুলি সকালে দু ঘন্টার জন্য খোলা থাকবে। সেখানে সবাইকে মাস্কে মুখ ঢেকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কেনাকাটা করার আবেদন রাখা হয়েছে।

পূর্ব বর্ধমানের কালনা মহকুমার পূর্বস্থলী রেল বাজার সারা বছরই ভিড়ে জমজমাট থাকে। এই বাজারে একশোরও বেশি অস্হায়ী দোকান রয়েছে। এছাড়াও সেখানে মাছ মাংস সবজির বাজার বসে। আশপাশের এলাকার কৃষকরা সবজি নিয়ে বাজারে আসেন। ভিড় এড়াতে সবজি বাজার আগেই স্টেশন রোডের পাশে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। তারপরও ভিড় হচ্ছিল স্টেশন বাজারে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, এতোদিন লক ডাউন চললেও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ কমার কোনও লক্ষন নেই। লাফিয়ে লাফিয়ে তা বেড়েই চলেছে। লক ডাউন না থাকলে তা হয়তো আরও ব্যাপক আকার নিত। বাজারে দূর দূরান্ত থেকে ক্রেতারা আসছেন। তাদের মধ্যে কে যে করোনার সংক্রমণ বহন করছেন তা বোঝার উপায় নেই। তাই ঝুঁকি না নিয়ে আমরা একদিন অন্তর বাজার খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এমনিতেই লক ডাউনে ব্যবসার খুবই ক্ষতি হয়েছে। আরও দু সপ্তাহ আমরা সচেতন থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমাদের এলাকায় করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রুখতেই এই সিদ্ধান্ত।

জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, পূর্বস্থলী ও কালনা দিয়ে যাতে নদীয়া জেলার বাসিন্দারা আসতে না পারেন তা দেখা হচ্ছে। জেলার সীমানায় নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। কালনা, কাটোয়াতেও গঙ্গার ঘাটগুলিতে সর্বক্ষণের নজরদারি রয়েছে। কালনায় ভাগীরথীতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে খেয়া পারাপার চলছিল। সেই অভিযোগ পাওয়ার পর তিন মাঝিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Saradindu Ghosh

Published by:Ananya Chakraborty
First published: