Home /News /south-bengal /

Burdwan: লাগামছাড়া সংক্রমণ, পূর্ব বর্ধমান জেলায় দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ৬০০ ছাড়াল

Burdwan: লাগামছাড়া সংক্রমণ, পূর্ব বর্ধমান জেলায় দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ৬০০ ছাড়াল

শুক্রবার পূর্ব বর্ধমান জেলায় ৫১২ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। শনিবার আক্রান্ত হন ৫১৩ জন। তার পরের ২৪ ঘণ্টায় এই জেলায় ৬২৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন

  • Share this:

    #বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। গত ২৪ ঘন্টায় এই জেলায় ৬০০-রও বেশি বাসিন্দা নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ইতিমধ্যেই করোনার সংক্রমণ রুখতে নানা বিধি নিষেধ আরোপ করেছে রাজ্য সরকার। জেলা প্রশাসনও এলাকা ধরে ধরে বিধি নিষেধ আরও কড়াকড়ি করেছে। তা সত্ত্বেও সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে থাকায় উদ্বিগ্ন স্বাস্থ্য দফতর। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যেভাবে সংক্রমণ বাড়ছে, তাতে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা হাজারে পৌঁছে যাওয়া সময়ের অপেক্ষা।

    আরও পড়ুন: হুঁশ নেই বাসিন্দাদের, বর্ধমান শহরে দৈনিক সংক্রমণ ডাবল সেঞ্চুরি পার

    শুক্রবার পূর্ব বর্ধমান জেলায় ৫১২ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। শনিবার আক্রান্ত হন ৫১৩ জন। তার পরের ২৪ ঘণ্টায় এই জেলায় ৬২৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এই জেলায় এদিন পর্যন্ত ৪৩ হাজার ৭২৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ৪০ হাজার ৯০৫ জন ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন। করোনা আক্রান্ত হয়ে এই জেলায় ৪৯৭ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে। তবে বর্তমানে অ্যাক্টিভ রোগীর সংখ্যা গত এক সপ্তাহে অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। এদিন পর্যন্ত পূর্ব বর্ধমান জেলায় ২৩২৩ জন অ্যাক্টিভ করোনা আক্রান্ত রয়েছেন। তবে তাদের বেশিরভাগেরই বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা চলছে।

    আরও পড়ুন: বর্ধমানের গ্রামীণ এলাকায় উদ্বেগজনকভাবে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ 

    পূর্ব বর্ধমান জেলায় সদর শহর বর্ধমানে করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলছে সবচেয়ে বেশি। এছাড়াও কালনা কাটোয়া মেমারি পৌরসভা এলাকাতেও উদ্বেগজনক ভাবে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। পিছিয়ে নেই গ্রামীণ এলাকাগুলিও। বর্ধমান শহর লাগোয়া গ্রামীণ এলাকা যেমন, ভাতার, গলসি, কেতুগ্রাম পূর্বস্থলী সর্বত্রই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই সময় ভিড় থেকে সংক্রমণ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা খুব বেশি। তাই খুব প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে না বেরনো উচিৎ।সবসময় মাস্কে মুখ ঢেকে রাখা জরুরি, সঙ্গে স্যানিটাইজার ব্যবহার-সহ যাবতীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা প্রয়োজন। কিন্তু বেশিরভাগ সময়ই বাসিন্দাদের মধ্যে সেই সচেতনতা দেখা যাচ্ছে না। ফলে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে যাচ্ছে।

    Published by:Rukmini Mazumder
    First published:

    Tags: Burdwan

    পরবর্তী খবর