'মুখ্যমন্ত্রীর ছবি দেখে শক্তি পাই', হাসনাবাদের বিডিওর মন্তব্যে বিতর্ক

'মুখ্যমন্ত্রীর ছবি দেখে শক্তি পাই', হাসনাবাদের বিডিওর মন্তব্যে বিতর্ক
  • Share this:

#হাসনাবাদ: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবির সামনে দাঁড়ালেই তিনি শক্তি পান। অদ্ভুত জীবনশক্তি পান মুখ্যমন্ত্রীর ছবি দেখে। সরকারি অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে একথা বলে বিতর্কে জড়ালেন হাসনাবাদের বিডিও অরিন্দম মুখোপাধ্যায়। রবিবার রাতে হাসনাবাদে ঘুর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্তদের সরকারি ত্রাণ বিলির অনুষ্ঠান চলছিল। সেখানেই মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসা করতে গিয়ে আবেগে ভাসলেন বিডিও। জীবনশক্তি পেতে সকলের কাছেই আর্জি জানালেন, প্রতিদিন সকালে দু'মিনিট মুখ্যমন্ত্রীর ছবির সামনে দাঁড়ানোর। তবে একজন সরকারি আধিকারিকের মুখে রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের এমন প্রশংসায়, বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

সরকারি ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানের মঞ্চে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসা করতে গিয়ে আবেগে বেলাগাম হয়ে গেলেন হাসনাবাদের বিডিও অরিন্দম মুখার্জি। মঞ্চে দাঁড়িয়ে বলেন, ‘আপনারা সকালবেলা মুখ্যমন্ত্রীর ছবির সামনে দু’মিনিট দাঁড়ালে একটা অদ্ভুত শক্তি পাবেন।’

হাসনাবাদের ছটি পঞ্চায়েতে গিয়ে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ বিতরণ করেন বিডিও অরিন্দম মুখার্জি, জেলাপরিষদের শিক্ষা কর্মাধ্যক্ষ ফিরোজ কামাল গাজী ও এলাকার নেতারা। বুলবুল ঘূর্ণিঝড়ের পর বসিরহাটে প্রশাসনিক বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। সেখানে দাঁড়িয়ে তিনি বলেছিলেন বুলবুল ঝড়ের কবলে পড়ে যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের জন্য একটা বিশেষ কিট তৈরী করার কথা। সংসারের নানা প্রয়োজনীয় জিনিস স্টোব, হাড়ি, কড়া, থালা, বাটি থেকে ত্রিপল জামা কাপড় সব প্রয়োজনীয় জিনিস দিয়ে তৈরি এই কিট ব্যাগ। হাসনাবাদের ছটি পঞ্চায়েতে আনুষ্ঠানিকভাবে এই বিশেষ ডিকনিটি কিট ব্যাগ দেওয়া শুরু হয়।

তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে হাসনাবাদের বিডিও অরিন্দম মুখার্জিও ছিলেন ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে। ভেবিয়া পঞ্চায়েতের ত্রাণ বিতরণের মঞ্চে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসা করতে গিয়ে বিডিও অরিন্দম মুখার্জি বেলাগাম হয়ে পড়েন। মঞ্চে দাঁড়িয়ে তিনি বলেন - ‘সকাল বেলা যদি মুখ্যমন্ত্রীর ছবির সামনে দাঁড়ান একটা অদ্ভুত শক্তি পাবেন। আমি নিজে দাঁড়াই দুটো ছবির সামনে একটা স্বামী বিবেকানন্দর ছবির সামনে আর একটা মাননীয়ার ছবির সামনে। এক অদ্ভুত জীবনী শক্তিতে নিজেকে পুনর্জীবিত করেন তিনি মঞ্চে দাঁড়িয়ে একথা বলেন বিডিও সাহেব’ ।

First published: 09:21:46 PM Dec 02, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर