বিজেপি নয়, মুর্শিদাবাদে তৃণমূলে ভাঙন ধরাবে কংগ্রেস? অধীর গড়ে উলট পুরাণ

নিজের গড়ে তৃণমূলে ভাঙন ধরাতে পারবেন অধীর চৌধুরী?

যে মোশারফ হোসেনকে বহিষ্কার করা হল, তিনি শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত ছিলেন৷

  • Share this:

#বহরমপুর: তৃণমূল, সিপিএম বা কংগ্রেস৷ দল ছাড়লেই গন্তব্য বিজেপি৷ এটাই গত কয়েক বছরে রাজ্য রাজনীতিতে যেন নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছিল৷ কিন্তু এবার সেই ধারাতেই ব্যতিক্রম হতে চলেছে মুর্শিদাবাদ৷ অন্তত কংগ্রেস নেতাদের দাবি এমনই৷

এ দিনই মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদের সভাধিপতি মোশারফ হোসেনকে বহিষ্কার করেছে তৃণমূল কংগ্রেস৷ রাখঢাক না করে মোশারফ জানিয়ে দিয়েছেন, বিজেপি নয়, বাম-কংগ্রেস জোটের দিকেই পা বাড়িয়ে রয়েছেন তিনি৷ সূত্রের খবর, মোশারফ পুরোন দল কংগ্রেসেই ফিরছেন৷ শুধু মোশারফ নন, কংগ্রেসে ফিরে যাচ্ছেন বহরমপুর পুরসভার প্রাক্তন পুরপ্রধান এবং তৃণমূল নেতা নীলরতন আঢ্য৷ শাসক দলের চাপ বাড়িয়ে মোশারফ অবশ্য দাবি করেছেন, তিনি একা নন, মুর্শিদাবাদে কংগ্রেস ছেড়ে যাঁরা তৃণমূলে এসেছিলেন তাঁদের মধ্যে অধিকাংশ নেতাই কংগ্রেসে ফিরে যাওয়ার কথা ভাবছেন৷

যে মোশারফ হোসেনকে বহিষ্কার করা হল, তিনি শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত ছিলেন৷ মুর্শিদাবাদে তৃণমূলের জেলা পরিষদের সদস্য মফিজউদ্দিন মণ্ডলের মৃত্যুর পর তাঁর স্মরণসভা করেন মোশারফ৷ সেখানে তৃণমূলের কোনও দলীয় পতাকা বা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি রাখা হয়নি৷ অথচ সেই স্মরণসভায় আমন্ত্রিত ছিলেন শুভেন্দু৷ তবে শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ হলেও ভোটের অঙ্কেই ফের কংগ্রেসমুখী তৃণমূল থেকে বহিষ্কৃত মোশারফ৷ একই কারণে পুরোন দলেই ফিরে যাওয়ার কথা ভাবছেন কংগ্রেস ছেড়ে শাসক দলে যোগ দেওয়া নেতারা৷

অঙ্ক বলছে, মুর্শিদাবাদে প্রায় ৭০ শতাংশ সংখ্যালঘু ভোট রয়েছে৷ ফলে রাজ্যের অন্যত্র যাই হোক না কেন, এই জেলায় অন্তত তৃণমূলকে বাদ দিয়ে বাম-কংগ্রেস জোটেরই ভাল ফল করার সম্ভাবনা বেশি বলে মনে করছেন কংগ্রেস থেকে আসা তৃণমূল নেতারা৷ তার উপর বাম-কংগ্রেসে জোটের সঙ্গে আব্বাসউদ্দিন সিদ্দিকির নতুন দল জোট বাঁধলে জয়ের সম্ভাবনা আরও বাড়বে বলেই মনে করছেন তাঁরা৷ গত লোকসভা নির্বাচনে মুর্শিদাবাদ জেলার তিনটির মধ্যে দু'টি আসনেই জিতেছিল তৃণমূল৷ বহরমপুরে নিজের গড় ধরে রেখেছিলেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী৷ কিন্তু মুর্শিদাবাদ কেন্দ্রে লোকসভা নির্বাচনের নিরিখেও বাম-কংগ্রেসের প্রাপ্ত ভোট যোগ করলে তা তৃণমূল এবং বিজেপি-র থেকে বেশি৷ আর জঙ্গিপুর কেন্দ্রে লোকসভা নির্বাচনের নিরিখে তৃণমূল অনেকটা এগিয়ে থাকলেও প্রাপ্ত ভোট যোগ করলে দু' নম্বরে ছিল বাম কংগ্রেসই৷ ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনের ফলের নিরিখে মুর্শিদাবাদের ২২টি বিধানসভা আসনের মধ্যে বিজেপি একটিতেও এগিয়ে নেই৷ সেখানে তৃণমূল এগিয়ে ১৬টি আসনে, কংগ্রেস একার ক্ষমতাতেই এগিয়ে ছিল ৫টি আসনে৷ বামফ্রন্ট এবং আব্বাস সিদ্দিকির সঙ্গে জোটবেঁধে লড়লে সেই ফল আরও কিছুটা ভাল হওয়ার আশাই দেখছেন দলবদলের চিন্তাভাবনা করা জেলার তৃণমূল নেতারা৷ সেই কারণেই বিজেপি-র বদলে পুরোন দল কংগ্রেসের দিকেই ঝুঁকে রয়েছেন তাঁরা৷

আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি বহরমপুরে যুব কংগ্রেসের জেলা সমাবেশ রয়েছে। সেই সভাতে উপস্থিত থাকবেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। সেই দিনই তৃণমূল থেকে বহিষ্কৃত মোশারফ হোসেন কংগ্রেসে যোগদান করবেন। একই মঞ্চে দলবদল করতে পারেন নীলরতন আঢ্যও৷ ভবিষ্যতে একই পথে হাঁটতে পারেন মুর্শিদাবাদে তৃণমূল কংগ্রেসের আরও কিছু নেতাও৷

Pranab Kumar Banerjee
Published by:Debamoy Ghosh
First published: