সংক্রমণের নতুন রেকর্ড ! শুধু বর্ধমান নয়, এবার টানা লকডাউন কালনা, কাটোয়া, মেমারি শহরেও

একটানা পাঁচদিন এই লকডাউন পালন করা গেলে করোনার সংক্রমণ বেশ কিছুটা রুখে দেওয়া যাবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা

একটানা পাঁচদিন এই লকডাউন পালন করা গেলে করোনার সংক্রমণ বেশ কিছুটা রুখে দেওয়া যাবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা

  • Share this:

#বর্ধমান: বর্ধমান শহরের পাশাপাশি এবার একটানা লকডাউনের আওতায় নিয়ে আসা হল পূর্ব বর্ধমান জেলার কাটোয়া, কালনা ও মেমারি শহরকে। সেইসঙ্গে জেলার বেশ কয়েকটি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকাকেও একটানা লকডাউনের আওতায় নিয়ে আসা হচ্ছে। করোনার সংক্রমণে রাশ টানতেই এই একটানা লকডাউনের সিদ্ধান্ত বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় শুধুমাত্র কাটোয়া শহরেই নতুন করে ১৯ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। কালনা ও মেমারি পুরসভা এলাকা ও তার আশপাশ এলাকাতেও করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। সে সবের জেরেই কাটোয়ার পাশাপাশি মেমারি ও কালনা শহরেও একটানা লকডাউনের নির্দেশ জারি করা হল।

পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানান, ২৬ জুলাই রবিবার সকাল থেকে ২৮ জুলাই মঙ্গলবার রাত ১০টা পর্যন্ত কাটোয়া, কালনা ও মেমারি শহর ও কিছু গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় পুরোপুরি লকডাউন পালিত হবে। এইসব জায়গায় চিকিৎসা পরিষেবা ও নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী ছাড়া বাকি সবকিছু বন্ধ থাকবে। এই সব এলাকায় সমস্ত সরকারি ও বেসরকারি অফিস, ব্যবসা বাণিজ্য, কল কারখানা বন্ধ থাকবে।

জেলা প্রশাসন তিন দিনের লকডাউনের নির্দেশিকা জারি করলেও আসলে এই সব এলাকায় টানা পাঁচ দিন লকডাউন পালিত হবে। কারণ, শনিবার এমনিতেই রাজ্যের নির্দেশে সর্বত্র লকডাউন পালিত হবে। রবি, সোম, মঙ্গলবারের পর ফের বুধবার রাজ্য জুড়ে লকডাউন। একটানা পাঁচদিন এই লকডাউন পালন করা গেলে করোনার সংক্রমণ বেশ কিছুটা রুখে দেওয়া যাবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

কাটোয়া, কালনা ও মেমারি পৌরসভা এলাকা ছাড়াও পূর্বস্থলী এক নম্বর ব্লকের নসরতপুর গ্রাম পঞ্চায়েত, সমুদ্রগড় গ্রাম পঞ্চায়েত ও শ্রীরামপুর গ্রাম পঞ্চায়েতকে লকডাউনের আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে। মেমারি এক নম্বর ব্লকের দেবীপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এই লকডাউনের আওতায় এসেছে। একইভাবে মেমারি দু'নম্বর ব্লকের সাতগেছিয়া বাজার ও তার আশপাশ এলাকায় লকডাউন ঘোষনা করা হয়েছে। তেমনই বর্ধমান এক নম্বর ব্লকের বেলকাশ গ্রাম পঞ্চায়েত, শক্তিগড় গ্রাম পঞ্চায়েত ও রায়ান এক নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতকে লকডাউনের আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে।

Saradindu Ghosh
Published by:Ananya Chakraborty
First published: