• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • সিঙ্গুর থেকেই টাটাকে শিল্প গড়ার আহবান মুখ্যমন্ত্রীর, আলিমুদ্দিনে উদাসীন বুদ্ধ

সিঙ্গুর থেকেই টাটাকে শিল্প গড়ার আহবান মুখ্যমন্ত্রীর, আলিমুদ্দিনে উদাসীন বুদ্ধ

সিঙ্গুর উৎসবের মঞ্চে মাস্ট্রারস্ট্রোক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। সিঙ্গুর মঞ্চ থেকেই টাটাদের বিনিয়োগ বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সিঙ্গুরে ন্যানো কারখানা হয়নি, বদলে গোয়ালতোড়ে এক হাজার জমিতে টাটাদের কারখানা গড়ার প্রস্তাব মুখ্যমন্ত্রীর।

সিঙ্গুর উৎসবের মঞ্চে মাস্ট্রারস্ট্রোক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। সিঙ্গুর মঞ্চ থেকেই টাটাদের বিনিয়োগ বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সিঙ্গুরে ন্যানো কারখানা হয়নি, বদলে গোয়ালতোড়ে এক হাজার জমিতে টাটাদের কারখানা গড়ার প্রস্তাব মুখ্যমন্ত্রীর।

সিঙ্গুর উৎসবের মঞ্চে মাস্ট্রারস্ট্রোক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। সিঙ্গুর মঞ্চ থেকেই টাটাদের বিনিয়োগ বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সিঙ্গুরে ন্যানো কারখানা হয়নি, বদলে গোয়ালতোড়ে এক হাজার জমিতে টাটাদের কারখানা গড়ার প্রস্তাব মুখ্যমন্ত্রীর।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #সিঙ্গুর: সিঙ্গুর উৎসবের মঞ্চে মাস্ট্রারস্ট্রোক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। সিঙ্গুর মঞ্চ থেকেই টাটাদের বিনিয়োগ বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সিঙ্গুরে ন্যানো কারখানা হয়নি, বদলে গোয়ালতোড়ে এক হাজার জমিতে টাটাদের কারখানা গড়ার প্রস্তাব মুখ্যমন্ত্রীর।

    সিঙ্গুর পর্ব পিছনে ফেলে সবকিছু নতুন করে শুরুর আবেদন জানালেন মমতা। তাঁর আশ্বাস, গাড়ি কারখানা করলে চাইলে টাটা সহ সব অন্য সংস্থাকে যাবতীয় সাহায্য দিতে তৈরি রাজ্য প্রশাসন।

    জমিদাতারা চাইনি বলেই কারখানা হয়নি সিঙ্গুরে। তার বদলে ল্যান্ড ব্যাঙ্ক থেকে গোয়ালতোড়ে গাড়ি কারখানা করতে টাটাদের একই পরিমাণ জমি দেওয়ার প্রস্তাব দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷

    গোয়ালতোড়ে ১০০০ একর জমিতে টাটাদের শিল্প গড়ার প্রস্তাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী ৷   সিদ্ধান্ত নিয়ে ভাবার জন্য এক মাস সময়ও দিলেন তিনি ৷ বললেন ‘একটু ভাবুন, এটা জেদাজেদির বিষয় নয় ৷’

    সিঙ্গুরের উৎসব মঞ্চ থেকে শিল্পপতিদের উদ্দেশ্যে মমতার বার্তা, ‘এই জমিই চাই তা বললে আমি দিতে পারব না ৷ আমি সরকারি জমিই আপনাদের দিতে পারি ৷ কৃষকের জমি আমি দিতে পারব না ৷ হাওড়া ও পানাগড়েও আমাদের জমি রয়েছে ৷ সেখানেও আপনারা কারখানা করতে পারেন ৷ টাটাই হোক বা BMW হোক সকলেই আসতে পারেন ৷ গোয়ালতোড়ে জমি তৈরি ৷’

    আরও পড়ুন

    পূর্ণ সিঙ্গুর-বৃত্ত, সিঙ্গুর উৎসবের মঞ্চে তৃপ্ত মমতা

    মিউনিখের বাণিজ্য সম্মেলনে রাজ্যে বিনিয়োগের পক্ষে সওয়াল করেছিল টাটারা। সেখানেও টাটাদের রাজ্যে বিনিয়োগের আবেদন করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বিএমডব্লিউ বা সিমেন্সের মতো সংস্থাকে রাজ্যে বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘বাংলাই শিল্পের গন্তব্য ৷ বাংলায় আসুন, লগ্নি করুন ৷ শিল্পবান্ধব পরিবেশ রয়েছে বাংলায় ৷ পশ্চিমবঙ্গে বিদ্যুতের অভাব নেই ৷ বাংলায় লগ্নিতে এশিয়ার একাধিক দেশে বিনিয়োগের সুযোগ পাবেন লগ্নিকারীরা ৷ বাংলায় শিল্প স্থাপনে সাহায্য করবে রাজ্য ৷ বাংলায় যথেষ্ট প্রতিভা ও সম্ভাবনা আছে ৷ কৃষিক্ষেত্রেও এগিয়ে রয়েছে রাজ্য ৷ ’

    সিঙ্গুর পর্বের পরও রাজ্যে টাটাদের বিনিয়োগ থামেনি। সেই কথা তুলে ধরেই আরও একবার রাজ্যের পক্ষে সওয়াল মুখ্যমন্ত্রীর।

    টাটা থেকে BMW, সব সংস্থাকেই রাজ্যে টেনে টানতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে রাজ্য। সিঙ্গুর মঞ্চ থেকে তাও উঠে এল মুখ্যমন্ত্রীর বার্তায় ৷ বললেন, ‘কৃষি ও শিল্প দুই ভাইবোন ৷ দুজনকেই আমাদের বাঁচাতে হবে ৷ শিল্প আমরাও চাই ৷ আমরা ল্যান্ড ব্যাঙ্ক করেছি ৷ আমরা জমি নীতি করেছি ৷ কৃষি-শিল্প দুটোই একসঙ্গে চলবে ৷’

    সিঙ্গুর পর্ব যে রাজ্যের শিল্পায়নে বাধা নয়, তা আগেই স্পষ্ট করেছে টাটারা। তারপরও রাজ্যের শিল্প সম্ভাবনা ও জমি নিয়ে রাজ্যের অবস্থান স্পষ্ট করতে চেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। আর তার জন্য বেছে নিয়েছেন সঠিক মঞ্চকেই। সিঙ্গুর মঞ্চ থেকে মমতার এই বিনিয়েোগ বার্তা রাজ্যের পরিবর্তিত কৌশলেরই অঙ্গ বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের।

    অন্যদিকে, এদিন আলিমুদ্দিনে বৈঠকে যোগ দিতে যাওয়ার পথে সিঙ্গুর থেকে  টাটাদের দেওয়া  মমতার প্রস্তাব নিয়ে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে প্রশ্ন করলে মন্তব্য এড়ালেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য ৷ সিপিআইএম রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলীর বৈঠকে যোগ দিতে এদিন আলিমুদ্দিনে যান বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য ৷

    First published: