মোবাইলে গেম খেলা নিয়ে রেষারেষিতে নাবালক খুন, পুলিশের জালে দুই বন্ধু

মোবাইলে গেম খেলা নিয়ে রেষারেষিতে নাবালক খুন, পুলিশের জালে দুই বন্ধু

বৃহস্পতিবার দুপুরে বাঁকা নদীর ধার থেকে তার দেহাংশ উদ্ধার করে মেমারি থানার পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বাঁকা নদীর ধার থেকে তার দেহাংশ উদ্ধার করে মেমারি থানার পুলিশ।

  • Share this:

#বর্ধমান: মোবাইল গেমে বার বার হার। তার জেরে বন্ধুকে খুন করল তারই বন্ধু! পূর্ব বর্ধমানের মেমারিতে এই ঘটনা ঘটেছে। খুনের কারণ সামনে আসায় তাজ্জব বাসিন্দারা। পুলিশ ঘটনার বিস্তারিত তদন্ত শুরু করেছে। এক নাবালককে খুনের অভিযোগে তার দুই নাবালক বন্ধুকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

মোবাইলে ফ্রি-ফায়ার গেম খেলার জেরেই খুন নাবালক। এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে এলাকার এক নাবালক নিখোঁজ ছিল। বৃহস্পতিবার দুপুরে বাঁকা নদীর ধার থেকে তার দেহাংশ উদ্ধার করে মেমারি থানার পুলিশ। এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। পূর্ব বর্ধমানের শক্তিগড় থানার করন্দা গ্রামে বাড়ি মৃত নাবালকের। সে ভৈটা হরিদাস কর বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র। তার বাবা ব্যাঙ্গালোরে রঙ মিস্ত্রির কাজ করেন। মা পরিচারিকার কাজ করেন। দাদু দিদিমার কাছে থেকে সে পড়াশোনা করতো। লকডাউনে স্কুল বন্ধ। এই সময় বন্ধুদের সঙ্গে মোবাইল গেম খেলা চলছিল ধারাবাহিকভাবে। সেই খেলায় বারে বারেই বন্ধুদের টেক্কা দিচ্ছিল সে। তাতেই তাকে খূনের ছক করে বন্ধুরা। প্রাথমিক তদন্তের পর এমনই মনে করছে পুলিশ।

অভিযোগ এক বন্ধুর ডাকে ১৭মে সে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। এরপর তার কোনও হদিশ মেলেনি। পরিবারের পক্ষ থেকে তার সন্ধান পেতে থানায় ডায়েরি করা হয়। পুলিশ তার বন্ধুদের ডেকে জিজ্ঞাসাবাস করে। এক ট্রাক্ট্রর চালক জানান, ওই কিশোরকে মোবাইল নিয়ে চণ্ডীপুরে গ্রামে দেখা গিয়েছিল। সে একটি লাল স্করপিও গাড়িতে গিয়ে ওঠে। ইতিমধ্যে বাঁকা নদীতে এক নাবালকের মৃতদেহ মেলে। পরনের প্যান্ট ও গেঞ্জি দেখে তাকে সনাক্ত করেন পরিবারের লোকেরা। বাড়ির সকলে শোকে ভেঙে পড়েছেন। গ্রামের লোকেরাও হতবাক। এইরকম এক তরতাজা কিশোরের মৃত্যু কেউই মেনে নিতে পারছেন না।

জেলা পুলিশ জানিয়েছে, মৃতদেহ ওই নাবালকেরই কিনা সে ব্যাপারে নিশ্চিত হতে ডিএনএ পরীক্ষা হবে। ওই নাবালকের মোবাইল ফোনটি এক বন্ধুর কাছে পাওয়া গিয়েছে।

Saradindu Ghosh

Published by:Ananya Chakraborty
First published: