দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

দুয়ারে কর্মসূচিকে ঘিরেও শাসক দলের গোষ্ঠী সংঘর্ষ পূর্ব বর্ধমানে

দুয়ারে কর্মসূচিকে ঘিরেও শাসক দলের গোষ্ঠী সংঘর্ষ পূর্ব বর্ধমানে

সংঘর্ষে দু পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন

  • Share this:

#বর্ধমান: দুয়ারে সরকার কর্মসূচির উপলক্ষে দলীয় ক্যাম্প অফিস খোলার কেন্দ্র করে তৃণমূল কংগ্রেসের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠলো বর্ধমান শহরের লোকো এলাকা। গোষ্ঠী সংঘর্ষের জেরে এলাকায় তৃণমূলের একটি অফিস ভাঙচুর হয়। বেশ কয়েকটি মোটর সাইকেল ভেঙে দেওয়া হয়। সংঘর্ষে দু পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। দুজনের আঘাত গুরুতর। ঘটনার জেরে উত্তেজনা থাকায় এলাকায় পুলিশি টহল চলছে।

রাজ্যের অন্যান্য অংশের পাশাপাশি পূর্ব বর্ধমান জেলাতেও চলছে দুয়ারে সরকার কর্মসূচি। সেজন্য বর্ধমান শহরের লোকো রেলওয়ে বিদ্যাপীঠে শিবির খোলে প্রশাসন। স্কুলের বাইরে বাসিন্দাদের সহায়তা করার জন্য অস্থায়ী ক্যাম্প অফিস খোলে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। সেই অফিসে কারা বসবে তা নিয়েই প্রাক্তণ দুই কাউন্সিলর খোকন দাস ও মহম্মদ সেলিমের গোষ্ঠীর মধ্যে বিবাদ ও সংঘর্ষ শুরু হয়ে যায়। লাঠিশোটা নিয়ে এক গোষ্ঠী অন্য গোষ্ঠীর ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। রাস্তার ওপর দাঁড় করানো বেশ কয়েকটি মোটর সাইকেল ভাঙচুর হয়। ভেঙে দেওয়া হয় শাসক দলের পার্টি অফিসও। হুজ্জুতি দেখে আতঙ্কিত বাসিন্দারা পরিষেবা না নিয়েই তখনকার মতো পালিয়ে বাঁচেন।

বর্ধমান শহরের ছ নম্বর ওয়ার্ডের রেলওয়ে বিদ্যাপীঠে বসেছিল দুয়ারে সরকার। পরিষেবা নিতে আসা বাসিন্দাদের সহায়তার জন্য টেবিল পেতে বসেছিল প্রাক্তন কাউন্সিলর সৈয়দ মহম্মদ সেলিমের অনুগামীরা। অভিযোগ, দলের আর এক প্রাক্তন কাউন্সিলর খোকন দাসের অনুগামী হিসেবে পরিচিত শিবশংকর ঘোষ এসে টেবিল পেতে বসা এক তৃণমূল কর্মীকে মারধর করেন। তিনি প্রাক্তন রেলকর্মী। এরপরই দু পক্ষের সংঘর্ষ শুরু হয়ে যায়। শিবশংকর ঘোষকে বেদম মারধর করা হয়। খবর পেয়ে তৃণমূল নেতা খোকন দাস প্রচুর অনুগামী নিয়ে ওই এলাকার দিকে রওনা দেন। সার্কিট হাউসে কাছে তাদের আটকে দেয় পুলিশ। প্রতিবাদে রাস্তায় বসে বিক্ষোভ দেখান খোকন দাসের অনুগামীরা।

সৈয়দ মহম্মদ সেলিম বলেন, শিবশংকর ঘোষ বহিরাগত। বাইরে থেকে লোক এনে অশান্তি করতে চাইলে আমাদের লোকজন বাধা দেয়। অন্যদিকে খোকন দাসের দাবি, শিবশংকর ঘোষ দলের একনিষ্ঠ কর্মী। একদা সিপিএম থেকে আসা লোকজনরা এলাকার দখল নিতে তাকে মারধর করেছে। পুলিশ দোষীদের গ্রেফতার না করলে থানা ঘেরাও করা হবে।

Published by: Ananya Chakraborty
First published: December 4, 2020, 2:54 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर