• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • তেল, মশলার পর এবার হদিশ মিলল ভেজাল চিপসের কারখানার

তেল, মশলার পর এবার হদিশ মিলল ভেজাল চিপসের কারখানার

নদিয়ার নবদ্বীপে ভেজাল খাবার তৈরির কারখানার হদিশ। সেখানে মেয়াদ উত্তীর্ণ নামী কোম্পানির চিপস-চানাচুর ফের নতুন করে প্যাকেজিং করা হত।

নদিয়ার নবদ্বীপে ভেজাল খাবার তৈরির কারখানার হদিশ। সেখানে মেয়াদ উত্তীর্ণ নামী কোম্পানির চিপস-চানাচুর ফের নতুন করে প্যাকেজিং করা হত।

নদিয়ার নবদ্বীপে ভেজাল খাবার তৈরির কারখানার হদিশ। সেখানে মেয়াদ উত্তীর্ণ নামী কোম্পানির চিপস-চানাচুর ফের নতুন করে প্যাকেজিং করা হত।

  • Share this:

    #নদিয়া: নদিয়ার নবদ্বীপে ভেজাল খাবার তৈরির কারখানার হদিশ। সেখানে মেয়াদ উত্তীর্ণ নামী কোম্পানির চিপস-চানাচুর ফের নতুন করে প্যাকেজিং করা হত। তার জন্য ব্যবহার করা হত বিভিন্ন রাসায়নিকও। পুরসভা ও পুলিশের যৌথ অভিযানে ধৃত কোম্পানির মালিক দীপঙ্কর সাহা। এই চক্রে আর কারা জড়িত? তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

    মেয়াদ ফুরিয়েছে অনেক আগেই। সেই মেয়াদ উত্তীর্ণ চিপস-চানাচুর বাজারে বিক্রির রমরমা কারবার। নদিয়ার নবদ্বীপে ভেজাল খাবার তৈরির কারখানার হদিশ মিলল। ধৃত কারখানার মালির দীপঙ্কর সাহা। পুলিশ সূত্রে খবর,

    -

    পশুখাদ্য বানানোর নামে মেয়াদ উত্তীর্ণ চিপস সংগ্রহ - সংগ্রহ করা হত মেয়াদ উত্তীর্ণ চানাচুর, বিস্কুট ও ভুজিয়া - মেয়াদ উত্তীর্ণ খাবারগুলিতে রাসায়নিক মেশান হত - ফের সেগুলিকে প্যাকেজিং করা হত - দেওয়া হত নতুন ব্যাচ নম্বর ও এক্সপায়ারি ডেট - তারপর সেগুলিকে ফের বাজারে বিক্রি করা হত - কখনও নামী কোম্পানির নাম দিয়েও সেগুলি বিক্রি করা হত

    বুধবার নবদ্বীপ পুরসভা ও পুলিশ স্টেশন সংলগ্ন ওই কারখানায় হানা দেয়। প্রচুর মেয়দ উত্তীর্ণ চিপস-চানাচুর ও রাসায়নিক উদ্ধার হয়েছে।

    পুরনো চিপস-চানাচুর-ভুজিয়া নতুন করে প্যাকেট করার কথা স্বীকার করেছেন কারখানার কর্মী।

    কারখানা থেকে বাজেয়াপ্ত খাবারের নমুনা পরীক্ষাগারে পাঠান হচ্ছে। মেয়াদউত্তীর্ণ এই খাবারগুলি মানুষের শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর বলে দাবি পুরপ্রধানের। এই চক্রের সঙ্গে আর কারা জড়িত? তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। কারখানা থেকে এই চিপস-চানাচুরগুলি কোথায় বিক্রি করা হত? তাও তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

    First published: