চলন্ত ট্রেন ও প্ল্যাটফর্মের মাঝে আটকে মহিলা.... দেখুন হাড়হিম করা ভিডিও

চলন্ত ট্রেন ও প্ল্যাটফর্মের মাঝে আটকে মহিলা.... দেখুন হাড়হিম করা ভিডিও

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে বেশ কয়েকজন চলন্ত ট্রেনের কামরায় উঠে যাচ্ছেন। তাদের মতোই ট্রেনে ওঠার চেষ্টা করেন মানসী দেবী। আর তারপরেই .......

  • Share this:

ABIR GHOSAL

#পুরুলিয়া: রাখে হরি, মারে কে? এই ভিডিও দেখলে আপনার গা শিউরে উঠবে। তবে, প্রবাদবাক্য সত্যি হল মানসী অধিকারির জন্য। মনোজ কুমারের তাৎক্ষণিক বুদ্ধি বাঁচিয়ে দিল ৫৭ বছরের মানসী দেবীর জীবন।

শনিবার রাঁচি-হাওড়া ইন্টারসিটি এক্সপ্রেসের যাত্রী ছিলেন মানসীদেবী। অন্যান্য দিনের মতোই ট্রেন এসে দাঁড়িয়ে ছিল পুরুলিয়া স্টেশনের ৩ নম্বর প্ল্যাটফর্মে। ভীড় ছিল যথেষ্ট স্টেশনে। ফুট ওভার ব্রিজের একটু পরেই ছিল সি ২ কামরা। এই কামরাতেই আসন ছিল মানসীদেবীর। তবে সঠিক সময়ে তিনি তাঁর জন্য নির্দিষ্ট কামরায় এসে উঠতে পারেননি। যে সময়ে তিনি পুরুলিয়া স্টেশনের ৩ নম্বর প্ল্যাটফর্মে এসে পৌঁছলেন তখন ট্রেন চলতে শুরু করে দিয়েছে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে বেশ কয়েকজন চলন্ত ট্রেনের কামরায় উঠে যাচ্ছেন। তাদের মতোই ট্রেনে ওঠার চেষ্টা করেন মানসী দেবী। আর তারপরেই ....... লোক ভর্তি প্ল্যাটফর্মে তখন গেল গেল রব। এরই মধ্যে দেখা গেল একজন আর পি এফ কর্মী দৌড় লাগিয়েছেন ওই কামরার দিকে।

নিজের জীবন বাজি রেখে টেনে তুলে আনলেন মানসী দেবীকে। পুরুলিয়া স্টেশনের এই চিৎকার চেঁচামেচি দেখে ট্রেন থামিয়ে দেন চালকও। উদ্ধার করে আনা হয় মানসী দেবীকে। দক্ষিণ পূর্ব রেল সূত্রে খবর, যথা সময়েই পুরুলিয়া স্টেশনে এসে পৌঁছেছিল ইন্টারসিটি এক্সপ্রেস। ট্রেন যথাসময়ে ছাড়বে তা জানিয়ে ঘোষণা করা হতে থাকে পাবলিক অ্যাড্রেস সিস্টেমে। যথাসময়েই ট্রেন ছেড়ে দেয়।

দেরির ফলে ওই যাত্রী যেভাবে ট্রেনে উঠতে গিয়েছিলেন তাতে নিজের শরীরের ভারসাম্য রাখতে না পেরেই প্ল্যাটফর্ম ও কামরার মধ্যে যে ফাঁক থাকে তার মাঝে পড়ে যান মানসী দেবী। ওখানে কর্তব্যরত দুই আর পি এফ কর্মী মনোজ কুমার এবং আর সি দাসের নজরে আসে বিষয়টি। তড়িঘড়ি ছুটে গিয়ে প্রাণ বাঁচান রেল যাত্রীর।

অনেকদিন ধরেই যাত্রীরা অভিযোগ করে আসছেন ট্রেন এবং প্ল্যাটফর্মের মধ্যে দুরত্ব চওড়া হচ্ছে। তার জেরে বয়স্ক যাত্রীদের ওঠা নামার জন্য বেশ অসুবিধার মধ্যে পড়তে হচ্ছে। অনেক সময় দেখা যাচ্ছে দুর্ঘটনা ঘটে যাচ্ছে।

তবে রেলের দাবি, জোর করে চলন্ত ট্রেনে উঠতে যাবেন না। রেল যথাযথ নিয়ম মেনেই অপেক্ষা করে। চলন্ত ট্রেনে উঠবেন না। তাতে বিপদ বাড়তে পারে। দুই আর পি এফ কনস্টেবলের কাজের প্রশংসা করছেন বাকি যাত্রীরা। যথা সময়ে তাদের নজরে এসেছিল বলে মানসীদেবীকে বাঁচানো সম্ভব হয়েছে বলে তারা মনে করছেন।

রেলের দাবি যাত্রী নিরাপত্তায় আর পি এফ যে যথাযথ নজর রাখে এটা তার যথাযথ উদাহরণ। যাত্রী বাঁচিয়ে অবশ্য খুশি দুই কনস্টেবল। তাদের একটাই উপলব্ধি, মানুষের প্রাণ বাঁচানোই একটা পুরষ্কার। তাদের কাজের প্রশংসা করে ট্যুইট করেছে রেল মন্ত্রক। তবে রেলের তরফে বারবার সতর্ক করা হয়েছে, ভুলেও চলন্ত ট্রেনে ওঠার চেষ্টা করবেন না।

First published: 03:07:03 PM Dec 08, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर